শিক্ষা ও স্বাস্থ্যCorona Virusআন্তর্জাতিক

করোনা ঠেকাবে মাউথওয়াশ, চলছে গবেষণা

করোনা ভাইরাসের বাড়াবাড়ি কমাতে মাউথওয়াশ কার্যকর হতে পারে কিনা তা নিয়ে জরুরি ভিত্তিতে গবেষণার আহ্বান জানিয়েছেন একদল বিজ্ঞানী।

কোভিড-১৯ রোগে প্রাথমিক পর্যায়ে সংক্রমণ হ্রাস করায় মাউথওয়াশের সম্ভাবনা  রয়েছে কিনা তা নির্ধারণ করতে বিজ্ঞানী দলটি মাউথওয়াশের বৈজ্ঞানিক গবেষণাগুলো পর্যালোচনা করেছেন।

সার্স-কোভ-২ ভাইরাসের বাইরের দিকে লিপিড মেমব্রেন রয়েছে। তবে গবেষকদের মতে, গলার ভেতর এই ভাইরাসের লিপিড মেমব্রেন নিষ্ক্রিয় করার ক্ষেত্রে মাউথওয়াশের ভূমিকা নিয়ে এখন অবধি কোনো গবেষণা হয়নি। 

গবেষকরা জানিয়েছেন, আগের গবেষণাগুলোতে দেখা গেছে মাউথওয়াশে সাধারণত যে ধরনের উপাদান থাকে- যেমন কম পরিমাণে ইথানল, পোভিডোন-আয়োডিন এবং সিটেলপেরিডিনিয়াম- এসব উপাদান এ ধরনের কিছু ভাইরাসের লিপিড মেমব্রেনের কার্যকারিতা ব্যাহত করতে পারে।

তবে তাঁরা জোর দিয়ে বলেছেন, এটি এখনও জানা যায়নি যে নতুন করোনাভাইরাসটির ক্ষেত্রেও এমনটা হতে পারে কিনা।

গবেষকরা সার্স-কোভ-২ ভাইরাসের লিপিড মেমব্রেনকে ব্যাহত করার দক্ষতা যাচাইয়ে মাউথওয়াশে বিদ্যমান উপাদানগুলো মূল্যায়ন করেছেন এবং পরামর্শ দিয়েছেন যে, এর বেশ কয়েকটি উপাদান ক্লিনিক্যাল মূল্যায়নের জন্য উপযোগী। 

ফাংশন জার্নালে প্রকাশিত এই রিভিউয়ে গবেষকরা লিখেছেন, ‘আমাদের গবেষণায় হাইলাইট করা হয়েছে যে, নতুন করোনাভাইরাস সহ এ ধরনের অন্যান্য ভাইরাস নিয়ে ইতিমধ্যে প্রকাশিত গবেষণা সরাসরি এই ধারণাকে সমর্থন করে যে, গলার সংক্রমণ হ্রাস করার একটি সম্ভাব্য উপায় উদ্ভাবনে আরো গবেষণার প্রয়োজন। আমরা জানি না বিদ্যমান মাউথওয়াশগুলো সার্স-কোভ-২ এর লিপিড মেমব্রেনের বিরুদ্ধে সক্রিয় কিনা। তবে আমরা আশাবাদী। নতুন ভাইরাসটির বিরুদ্ধে মাউথওয়াশ ব্যবহারের সম্ভাবনা নির্ধারণের জন্য জরুরি ভিত্তিতে গবেষণা করা দরকার।

মাউথওয়াশের রিভিউমূলক এই গবেষণাটি কার্ডিফ ইউনিভার্সিটির স্কুল অব মেডিসিন, নটিংহাম ইউনিভার্সিটি, কেমব্রিজের বাব্রাহাম ইনস্টিটিউটের গবেষকদের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত হয়েছে।


Tags
Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel
Close