বিনোদনজেলা

লকডাউনে বাড়িতে বসেই আস্ত একটা সিনেমার স্যুটিং,মেদিনীপুরের কলাকুশলীদের হাত ধরে মুক্তি পেল রবীন্দ্রজয়ন্তীতে

মেদিনীপুর:করোনা সংক্রমণ এড়াতে চলছে লকডাউন। সকলেই গৃহবন্দি, তা বলে শিল্প থেমে থাকে কী করে? তাই ঘরে থেকেই ফিল্মের উদ্যোগ নিল এম এন প্রোডাকশন। রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তীতে মুক্তি পেল ‘তুমি রবে নীরবে’।

তবে অভিনয়ের চরিত্রে রবীন্দ্রনাথের উপস্থিতি ছাড়াই ফুটিয়ে তোলা হলো বিশ্ব কবিকে। মৃণালিনী ও কাদম্বরীর আত্মকথনের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এই স্বল্পদৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র। সেই সঙ্গে রবীন্দ্রনাথ নিয়ে শেষ মুহূর্তে বর্তমান সময়ের মুখ দিয়ে বলিয়ে নেওয়া হলো কথা।

কাদম্বরীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন অদ্রিজা ত্রিপাঠী। মৃণালিনীর চরিত্রে আদ্রিতা ত্রিপাঠী। যিনি বর্তমান প্রজন্মের মুখ হয়ে কথা বলেছেন তিনি পুলকেশ ত্রিপাঠী। ভাষ্য ও আবৃত্তিতে মিতালী। সংগীতে অদ্রিজা। মৃণালিনীর চরিত্র রূপায়ণ হয়েছে হায়দ্রাবাদের মাধারপুর থেকে। বাকি দুটি চরিত্র মেদিনীপুর শহরের দেশবন্ধু নগরের মিতালীর নিজ বাসভবন থেকে রূপায়িত হয়েছে। মৃণালিনীর চরিত্র ক্যামেরাবন্দি করেছেন তাঁরই সহকর্মী সুস্মিতা। বাকি দুটি চরিত্র ক্যামেরাবন্দি করেছেন মিতালী। পোশাক ও অলংকার নির্বাচন করেছেন মিতালী। ফ্লোর ম্যানেজার দুটি জায়গাতে ও আদৃতা। গ্রন্থনায় মিতালী ত্রিপাঠী। স্ক্রিপ্ট ও ডিরেকশন নিসর্গ নির্যাসের। এডিটিং সুনীল (বাপী) ( Edge)

দুই ভিন্ন জায়গাতে থেকেও দুই নারীর মধ্যে দিয়ে রবীন্দ্রনাথকে তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। সেই সঙ্গে বিশ্ব কবিকে নিয়ে সাহিত্যের নামে ‘আপন মনের মাধুরী মিশায়ে’ কবিকে যে ভাবে কাল্পনা করা হয়েছে তার বিরুদ্ধেও কড়া জবাব দেওয়া হয়েছে এই গৃহবন্দি চলচ্চিত্রে। পরিশেষে, কবিগুরুর প্রতি সম্মান জানিয়ে স্ক্রিপ্টে একটি মূল্যবান কথা ব্যবহার করা হয়েছে ‘বিকোলাম তবু বিকল্প কই’।

Tags
Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Close