ভোটযুদ্ধরাজনীতিরাজ্য

আজ বাঁকুড়ায় অমিত শাহ, আসন্ন ভোটে পাখির চোখ জঙ্গলমহল

GNE NEWS DESK: বুধবার রাতে কলকাতায় পৌঁছলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আজ, বৃহস্পতিবার সকালে তাঁর যাওয়ার কথা বাঁকুড়ায়। সেখানে সাংগঠনিক এবং সমাজের বিভিন্ন অংশের মানুষের সঙ্গে বৈঠকের মাঝখানে একটি আদিবাসী পরিবারে মধ্যাহ্নভোজ  সারার কথা তাঁর।

বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব যে আসন্ন বিধানসভা ভোটে জঙ্গলমহলের ভোট ব্যাঙ্ককে বিশেষ প্রাধান্য দিচ্ছেন তা স্পষ্ট। গত লোকসভায় রাজ্যের জঙ্গলমহলের আদিবাসী ভোটব্যাংকের একটা বড়ো অংশ বিজেপির পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন। সেই ভোট বিধানসভা নির্বাচনেও বজায় রাখতে নেতারা বদ্ধপরিকর।

ব্যক্তিগত ভাবে অমিত শাহ বরাবর জঙ্গলমহল নিয়ে বিশেষ আগ্রহী। তাই জঙ্গলমহলের সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীর প্রতিনিধিদের সাথে এদিন রবীন্দ্র ভবনে নিজে কথা বলে পুরো জঙ্গলমহলের হাল হকিকত জেনে নেবেন। নিজে জঙ্গলমহলের মানুষ ও এখানকার দলের কার্যকর্যাদের সাথে বৈঠক করে এখাকার সার্বিক চিত্র জেনে সেই মতো বিধানসভা ভোটের রণ কৌশল বাতলে দেবেন এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

বাঁকুড়া জেলার চতুরডিহি গ্রামে আদিবাসী পল্লীর বিভীষণ হাঁসদার বাড়ীতে বৃহস্পতিবার দুপুরে মধ্যাহ্ণ ভোজন সারবেন শাহ। বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ পুরো বিষয়টি তদারকি করেছেন। শহরের রবীন্দ্র ভবনে আসন্ন সভার প্রস্তুতি জোর কদমে সারা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের সভা সফল করতে দলের কেন্দ্রীয় সম্পাদক অরবিন্দ মেনন শহরের রামপুরে একটি বেসরকারি লজে ম্যারাথন প্রস্তুতি বৈঠক করেন। রাঢ়বঙ্গ ও মেদিনীপুরের কার্যকর্তারা অংশ নেন এই বৈঠকে। এছাড়া বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়, সাংসদ সৌমিত্র খাঁ, সুভাষ সরকার, বিজেপি নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় সহ অন্যান্য সাংসদ এবং প্রদেশ ও কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

রাজ্যে বিজেপির বর্তমান রাজনৈতিক সমীকরণের হিসাবে শাহ র এই সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সম্প্রতি রাজ্য নেতৃত্বের বেশ কিছু সাংগঠনিক পদে রদবদল ঘটেছে। রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) সুব্রত চট্টোপাধ্যায়কে সরিয়ে তাঁর জায়গায় অমিতাভ চক্রবর্তীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়ের শিবিরের ক্ষমতাও বেড়েছে বলে দলের একাংশের অভিমত। এই নিয়ে রাজ্য নেতৃত্বের একাংশের ক্ষোভ রয়েছে। বৈঠকে শাহের সামনে ওই দুই শিবিরের দ্বৈরথ প্রকাশ পায় কি না, তা নিয়ে কৌতূহল রয়েছে অনেকের।

দিল্লি থেকে রওনা হওয়ার আগে শাহ টুইট করেন, ‘‘বঙ্গ বিজেপির কার্যকর্তা, পশ্চিমবঙ্গের মানুষ, মিডিয়ার বন্ধুবান্ধব এবং বিভিন্ন সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে মত বিনিময় করার প্রত্যাশায় উন্মুখ হয়ে আছি।’’

সব মিলিয়ে বিজেপির অন্দরে বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতির দামামা যে জঙ্গলমহলকে কেন্দ্র করেই বেজে উঠতে চলেছে তা বলাই বাহুল্য।

Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel