প্রথম পাতা ভোট বাংলা আজকের রাশিফল সকালের বাংলা কর্ম সন্ধান পশ্চিম বাংলা বাংলার জেলা ভারতবর্ষ বিশ্ব বাংলা খেল বাংলা প্রযুক্তি বাংলা বিনোদন বাংলা        লাইফস্টাইল বাংলা EXCLUSIVE বাংলা GNE TV
ভোটযুদ্ধরাজনীতি

সবং এ মানস ও অমূল্য টক্কর, তৃণমূল-বিজেপি যুযুধান দুই পক্ষই

GNE NEWS DESK: পশ্চিম মেদিনীপুর বরাবরই বামদুর্গ হিসেবে পরিচিত ছিল। কিন্তু বাম জমানার সেরা সময়েও সবং কেন্দ্রটি কংগ্রেসের হাতছাড়া হয়নি। সৌজন্যে মানস রঞ্জন ভূঁইয়া। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে তিনি নিজের এলাকাতেই তৃণমূল প্রার্থী। তাঁর বিপরীতে সদ্য তৃণমূল ত্যাগ করে বিজেপিতে আসা অমূল্য মাইতি।

সবং থেকে কংগ্রেসের টিকিটে একাধিক বার জিতে বিধায়ক হয়েছেন মানস। হয়েছেন মন্ত্রীও। ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে যখন মেদিনীপুর জুড়ে জোড়া ফুলের দাপট তখন বাম-কংগ্রেস জোটের প্রার্থী হয়ে বিপুল ভোটে জয় লাভ করেছেন সবং এ।

এরপর এসেছে রাজনৈতিক পট পরিবর্তন। কংগ্রেস ত্যাগ করে তৃণমূলে গিয়েছেন বর্ষীয়ান নেতা। লোকসভা ভোটে মেদিনীপুর কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী হয়ে বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষের প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে হেরেছেন। তৃণমূলের টিকিটে হয়েছেন রাজ্যসভার সাংসদ। কিন্তু তাতেও সবং এ মানস ভূঁইয়ার জনপ্রিয়তা ক্ষুণ্ণ হয়নি।

তিনি রাজ্যসভায় যাওয়ার পর সবং এ উপনির্বাচনে তৃণমূলের টিকিটে জিতিয়ে এনেছেন স্ত্রী গীতারানি ভূঁইয়াকে। প্রত্যাশিত ভাবেই পুনরায় সবং এ তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে ভোট ময়দানে মানস ভূঁইয়া।

উল্টো দিকে বিজেপি প্রার্থী অমূল্য মাইতি। জেলার রাজনীতিতে বরাবর মানস ভূঁইয়ার বিরোধী হিসেবে পরিচিত। সেই সঙ্গে অধিকারী পরিবার ঘনিষ্ঠ। একদা এই তৃণমূলের নেতা পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলা পরিষদের খাদ্য কর্মাধ্যক্ষ ছিলেন। এরপর অধিকারী পরিবারের সাথে ঘনিষ্ঠতার কারণে দলের সঙ্গে বেড়েছিল দূরত্ব।

ডিসেম্বরে শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে তিনিও মেদিনীপুর কলেজ ময়দানে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের উপস্থিতিতে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন। জেলা রাজনীতি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল শুভেন্দু-ঘনিষ্ঠ অমূল্য মাইতিকেই বিজেপি বিধানসভা ভোটে সবং এর প্রার্থী করেছে। এখন দেখার তিনি আদৌ সবং এ রাজনৈতিক পরিবর্তন আনতে পারেন নাকি মানস ভূঁইয়া অক্ষুন্ন রাখেন নিজের দূর্গ।

একই রকমের খবর