প্রথম পাতা ভোট বাংলা আজকের রাশিফল সকালের বাংলা কর্ম সন্ধান পশ্চিম বাংলা বাংলার জেলা ভারতবর্ষ বিশ্ব বাংলা খেল বাংলা প্রযুক্তি বাংলা বিনোদন বাংলা        লাইফস্টাইল বাংলা EXCLUSIVE বাংলা GNE TV
ভোটযুদ্ধজেলা

জঙ্গলমহলে বিজেপির আধিপত্য নাকি প্রত্যাবর্তন ঘটাবে তৃণমূল, এক নজরে ঝাড়গ্রামের ভোট চিত্র

GNE NEWS DESK: লোকসভা ভোটে হিসেব উল্টে গেরুয়া ঝড় দেখেছিল জঙ্গলমহল। যত দিন গিয়েছে শক্তিশালী হয়েছে গেরুয়া সংগঠন। বিজেপি তাদের লোকসভা ভোটের সাফল্য আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনেও বজায় রাখতে সচেষ্ট। অন্যদিকে নিজেদের ভোট পুনরুদ্ধারে মরিয়া তৃণমূলও। পিছিয়ে নেই সিপিএমও। দীর্ঘ প্রায় নয় বছর পরে সুশান্ত ঘোষের প্রত্যাবর্তনে বামেদের পালে নতুন করে হাওয়া লেগেছে। সক্রিয় সুশান্ত ঘোষ একের পর জনসংযোগ কর্মসূচি করছেন গোটা জঙ্গলমহলে। তাঁর নেতৃত্বে সফল হয়েছে বামেদের বনধ ও চাক্কা জাম কর্মসূচি। ফলে বাম কর্মী সমর্থকরাও উজ্জীবিত। সবমিলিয়ে ঝাড়গ্রামের চার আসনেই এবার হাড্ডাহাড্ডি ত্রিমুখী লড়াই হবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

বিগত ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে ঝাড়গ্রামের চার আসনেই জয় পেয়েছিলেন তৃণমূল প্রার্থীরা। কিন্তু গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় থেকে ধীরে ধীরে বিজেপির সংগঠন ও গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে জেলার ৭৯টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে বিজেপি দখল করেছিল ২৪টি। আসন পেয়েছিল পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলা পরিষদেও। এরপরে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে আশাতীত সাফল্যের নজির রেখেছে গেরুয়া শিবির। জয়ী হয় ঝাড়গ্রাম লোকসভা আসনে। লোকসভায় প্রাপ্ত ভোটের বিধানসভা ভিত্তিক বিশ্লেষণে বিনপুর ছাড়া সব আসনগুলিতেই এগিয়ে ছিল বিজেপি।

কিন্তু এরপরেই জঙ্গলমহল পুনরুদ্ধারে বদ্ধপরিকর তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জেলায় দলীয় স্তরে একাধিক সাংগঠনিক পরিবর্তন করেন। রাজ্য সরকারের ‘স্বাস্থ্যসাথী’, ‘দুয়ারে সরকারে’র মতো প্রকল্পগুলির মাধ্যমে চেষ্টা করেন আমজনতার বিশ্বাস ফিরিয়ে আনতে। অন্যদিকে সুশান্ত ঘোষের সক্রিয় রাজনীতিতে প্রত্যাবর্তনের ফলে পুনরায় শক্তিশালী হয়েছে বামেরা। ঝাড়গ্রামে এবার তৃণমূল প্রার্থী ঝাড়খণ্ড পার্টি (নরেন)র প্রাক্তন নেত্রী বীরবাহা হাঁসদা। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে তাঁর বিরুদ্ধে প্রার্থী দিচ্ছে না ঝাড়খণ্ড পার্টি (নরেন)। ফলে ২৬ শতাংশ আদিবাসী ভোটের গতিপ্রকৃতির উপর ভোট ভাগ্য অনেকটাই নির্ভর করছে।

ঝাড়গ্রামের বিধানসভা আসনগুলিতে যুযুধান প্রধানতম প্রার্থীরা হলেন-

নয়াগ্রাম: তৃণমূল প্রার্থী দুলাল মুর্মু, বিজেপি প্রার্থী বকুল মুর্মু এবং সিপিএম প্রার্থী হরিপদ সোরেন।

গোপীবল্লভপুর: তৃণমূল প্রার্থী খগেন্দ্রনাথ মাহাতো, বিজেপির প্রার্থী সঞ্জিত মাহাতো, এবং সিপিএম প্রার্থী প্রশান্ত দাস।

ঝাড়গ্রাম: তৃণমূল প্রার্থী বীরবাহা হাঁসদা, বিজেপি প্রার্থী সুখময় শতপথী এবং সিপিএম প্রার্থী মধুজা সেনরায়।

বিনপুর: তৃণমূল প্রার্থী দেবনাথ হাঁসদা, বিজেপি প্রার্থী পালহান সোরেন এবং সিপিএম প্রার্থী প্রাক্তন বিধায়ক দিবাকর হাঁসদা।

একই রকমের খবর