প্রথম পাতা ভোট বাংলা আজকের রাশিফল সকালের বাংলা কর্ম সন্ধান পশ্চিম বাংলা বাংলার জেলা ভারতবর্ষ বিশ্ব বাংলা খেল বাংলা প্রযুক্তি বাংলা বিনোদন বাংলা        লাইফস্টাইল বাংলা EXCLUSIVE বাংলা GNE TV
ভোটযুদ্ধরাজনীতিরাজ্য

খড়্গপুরে মোদি : TMC-র নির্বাচনী ইস্তেহারকে কটাক্ষ ও ১০ বছরে বাংলাকে ধ্বংস করার অভিযোগ Modi-র

NEWS DESK: শনিবার খড়্গপুরে বিজেপির জনসভা থেকে তৃণমূল সরকার ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি(Narendra Modi)। নির্বাচনী ইস্তাহারে ১০ অঙ্গীকার নিয়ে কটাক্ষ করলেন তৃণমূলকে।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ইস্তেহারে ন্যূনতম রোজগারের ব্যবস্থা, সস্তায় বিদ্যুতের অঙ্গীকার করেছেন মমতা(Mamata)। সেই উন্নয়ন প্রসঙ্গেই আক্রমন শানালেন মোদি। বললেন, “বাংলায় উন্নয়নের পথে দেওয়াল হয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন দিদি।” মোদি অভিযোগ করেন, “মানুষ বিশ্বাস করেছিলেন দিদিকে। কিন্তু উনি বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন। বাংলার স্বপ্ন চুরচুর করে দিয়েছেন, ১০ বছরে বাংলাকে ধ্বংস করে দিয়েছেন।”
ইস্তেহার প্রসঙ্গে মমতাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, “১০ অঙ্গীকারের কথা বলছেন দিদি। বাংলার মানুষ আপনাকে ১০ বছর সময় দিয়েছিলেন। কিন্তু আপনি লুঠতরাজের সরকার চালিয়ে গিয়েছেন। ১০ বছরে শুরু দুর্নীতি দিয়েছেন।”

দিলীপ ঘোষের প্রশংসা করে মোদি বলেন, “দলকে জেতানোর জন্য গত কয়েক বছরে শান্তিতে ঘুমোননি দিলীপ ঘোষ। দিদির ধমকেও ভয় পাননি। ওঁর উপর অনেক হামলা হয়েছে, মেরে ফেলার চেষ্টা হয়েছে, কিন্তু বাংলার উজ্জ্বল ভবিষ্যতের লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে গিয়েছেন।” জনগনের কাছে প্রধানমন্ত্রী আবেদন করেন, “গত ৭০ বছরে অনেককে সুযোগ দিয়েছেন আপনারা। আমাদের পাঁচ বছর দিন, আমরা ৭০ বছরের ক্ষতি পুষিয়ে দেব।”

তৃণমূলের বহিরাগত তত্ত্বকে নাকচ করে মোদি বলেন, বিজেপি জনসঙ্ঘের ছত্রযায় তৈরি, যার প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, সেই অর্থে বিজেপি বাংলার দল।
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি তাঁর কটাক্ষ, দিদি তুষ্টিকরণের রাজনীতি করে এসেছেন বরাবর। বাংলার যুবসমাজের কাছ থেকে ১০ বছর কেড়ে দিয়েছেন দিদি। মমতার উপর অভিযোগ আনেন, দিদির দল নির্মমতার পাঠশালা। সিলেবাস হচ্ছে তোলাবাজি, কাটমানি, সিন্ডিকেট। দিদির পাঠশালায় উৎপীড়ন এবং অরাজকতার ট্রেনিং দেওয়া হয় বলেও কটাক্ষ করেন মোদি।

কেন্দ্রের নতুন শিক্ষানীতি নিয়ে তৃণমূলের বিরোধিতা নিয়ে মোদি বলেন, “গরিবের ছেলে ডাক্তার হোক, তাতেও আপত্তি দিদির। তাই নতুন শিক্ষানীতি চালু করতে চাইছেন না। যুবসমাজের ভবিষ্যৎ ভাবিত নন দিদি।”
সভা থেকে নাম না করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেও আক্রমণ করেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, “বাংলায় শুধু সিঙ্গল উইন্ডো ভাইপো। তা এড়িয়ে বাংলায় কিছু হওয়ার জো নেই। গত ১০ বছরে তৃণমূল রোজগারের সমস্ত সম্ভাবনার রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে। সিন্ডিকেট রাজত্বে জন্য বাংলায় কোনও শিল্প আসেনি। এখানে শুধু একটাই ব্যবসা, মাফিয়া ব্যবসা।” সুবর্ণরেখা এবং কংসাবদী নদীতে বেআইনি খননের প্রসঙ্গও তুলে ধরেন তিনি।

একই রকমের খবর