আন্তর্জাতিকবিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

অসফল হয়নি ভারতের চন্দ্রযাত্রা,চাঁদের বুকে নতুন গহ্বর ‘ সারাভাই ক্রেটার’ খুঁজে পেল বিজ্ঞানীরা!

New hole in the moon’s chest ‘Sarabhai Crater’

GNE NEWS DESK:প্রতীক্ষা শেষ। অসফল হয়নি ভারতের চন্দ্রযাত্রা। কাজ থামায়নি চন্দ্রযানের অরবিটার। চাঁদের কক্ষে পাক খেতে খেতেই আবার তার বুকে নতুন গহ্বর খুঁজে পেল চন্দ্রযানের অরবিটার। এই গহ্বরের নাম রাখা হয়েছে ‘সারাভাই ক্রেটার’ ।

১.৭ কিলোমিটার গভীর। চাঁদের পিঠে এই গহ্বরের থ্রি-ডি ছবি তুলে পৃথিবীর গ্রাউন্ড স্টেশনে পাঠিয়েছে অরবিটার। গহ্বরের প্রতিটি খাঁজ স্পষ্টভাবে ধরা পড়েছে ছবিতে। ইসরো জানাচ্ছে, সারাভাই ক্রেটারের খোঁজ আগামী দিনে চন্দ্রযাত্রায় নতুন মাত্রা যোগ করবে। চাঁদের পিঠের খানাখন্দ, গহ্বর, চাঁদের মাটির বৈশিষ্ট্য আরও বিশদে জানতে পারবেন বিজ্ঞানীরা।

ইসরো জানিয়েছে, অরবিটারের আটটি পে-লোডের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সক্রিয় লার্জ এরিয়া সফট এক্স-রে স্পেকট্রোমিটার (CLASS), অরবিটার হাই রেজোলিউশন ক্যামেরা (OHRC) এবং ডুয়াল ফ্রিকোয়েন্সি সিন্থেটিক অ্যাপারচার রেডার’ (DF-SAR)। এই সিন্থেটিক অ্যাপারচার রেডার বা SAR-এর এস-ব্যান্ড হাইব্রিড পলোরিমেট্রিক সিস্টেম চাঁদের মাটির গোপন কথা তুলে আনতে সক্ষম। চাঁদের পিঠের গহ্বর তো বটেই, চাঁদের মাটির বিশেষত্বও ধরা পড়ে এই বিশেষ ধরনের রেডারে।

চন্দ্রযান-১ যদিও সফল হয়নি । তবে না হলেও এর সিন্থেটিক অ্যাপারচার রেডার বড়সড় খোঁজ দিয়েছিল। তারা বলেছিল যে চাঁদের দক্ষিণ পিঠে বরফ আছে। চাঁদের মাটিতে খনিজের সম্ভাবনার কথা বলেছিল। এবার সেই সম্ভাবনাকেই খতিয়ে দেখার জন্য দ্বিতীয়বার চাঁদে পাড়ি দিয়েছিল ইসরোর চন্দ্রযান২। তবে ল্যান্ডার চাঁদের মাটিতে নামার আগেই তার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ইসরো জানায় সঠিক সময় গতিবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পারার ফলে চাঁদের পিঠে ‘হার্ড ল্যান্ড’করেছে চন্দ্রযানের ল্যান্ডার বিক্রম। তবে ল্যান্ডার অকেজো হলেও চন্দ্রযানের অরবিটার এখনও সক্রিয় রয়েছে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, চন্দ্রযান-২ এর সিন্থেটিক অ্যাপারচার রেডারে রয়েছে এল ও এস ব্যান্ড। প্রথম চন্দ্রযানের চেয়ে যা অনেক বেশি উন্নত ও আধুনিক। যে কারণে প্রথম চন্দ্রজানকে সফল করা যায়নি। এই রেডারে সহজেই ধরা পড়ে চাঁদের ক্রেটার বা গহ্বরের বৈচিত্র্য। ক্রেটার থেকে ছিটকে বেরনো পদার্থ বা Crater Ejecta। কয়েক কোটি বছরের পুরনো বুড়ো গহ্বর যেমন দেখেছে এসএআর তেমনি দেখেছে নতুন গজিয়ে ওঠা সদ্যোজাত গহ্বরও। মহাকাশের বিজ্ঞানীদের মতে অনেক সময়েই এই সব ছবি ক্যামেরাতে ধরা পড়ে না। চাঁদের ধুলোতে আচ্ছন্ন হয়ে থাকে।

দুরন্ত গতিতে কাজ চলছে। অরবিটারের ডেটা বলছে, বিক্রমের ট্রান্সমিটার অকেজো। অ্যান্টেনাও রেডিও এর সাথে সংযোগের ক্ষমতা হারিয়েছে। সোলার প্যানেলকে অ্যাকটিভ করার উপায় নেই, কারণ সূর্যের আলো এখন সরাসরি চাঁদের দক্ষিণ পিঠে পড়ছে না। কাজেই বিক্রম আর রোভারের কাজের বেশ কিছুটা করতে হয়েছে অরবিটারকেই। তার স্পেকট্রোমিটার চাঁদের মাটিতে খনিজের সন্ধান তো পেয়েছেই, তাদের মধ্যে চার্জড পার্টিকলের (প্রোটন-ইলেকট্রন) নিরন্তর বদলও লক্ষ্য করেছে। এখনো বিজ্ঞানীরা আশা রেখেছেন যে তারা এই মাটিতেই হইতো খনিজের সন্ধান পাবেন।

Tags:চাঁদের বুকে নতুন গহ্বর,সারাভাই ক্রেটার,অসফল হয়নি ভারতের চন্দ্রযাত্রা

Tags
Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel
Close