জেনে নিন

জেনে নিন চা খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা

রিফ্রেশমেন্ট-এর জন্য তো কেউ স্বভাববশতই দিনে কয়েক কাপ চা পান করে থাকেন। আবার অফিসের কাজের ফাঁকে একটু এনার্জি পেতেও অনেকে গরম চায়ের পেয়ালায় চুমুক মারেন। কিন্ত আপনি কি জানেন চা আমাদের শরীরের কতটা উপকার ও অপকার করে?

চা খাওয়ার উপকারিতা :
১. চা পাতায় পাওয়া অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং ফাইটোকেমিক্যাল আপনার প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করে। এবং যদি এটিতে আদা থাকে তবে এটি দুর্দান্ত স্বাদ দেয় এবং সর্দি-কাশির হাত থেকে রক্ষা করে।
২. মশলা চা খাওয়া বিশেষত মহিলাদের জন্য উপকারী। এতে উপস্থিত বদরক এবং দারুচিনি হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখার পাশাপাশি মাসিকের ব্যথা উপশম করতেও সহায়ক ভূমিকা পালন করে।
৩. দুধ এবং চিনিবিহীন চা যা হৃৎপিণ্ড এবং পেটের জন্য উপকারী। এটি হজম সিস্টেমের ব্যাঘাতকেও অনেকাংশে সরিয়ে দেয়।
৪. গ্রিন টি আকারে চা, চাপ কমাতে এবং ওজন কমাতেও কার্যকর। শুধু এটিই নয় গ্রিন টি আপনাকে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করে এবং বর্ধমান বয়সের প্রভাব হ্রাস করতেও সহায়তা করে।
৫. একটি গবেষণা অনুসারে, মহিলাদের মধ্যে যারা চা খান তাদের তুলনায় স্তন ক্যান্সার এবং গর্ভাবস্থার ক্যান্সার তুলনামূলকভাবে কম এবং চা পান করার পরে তাদের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

৬.লেবু-চা আকারে চা খাওয়া আপনার শরীর থেকে ক্ষতিকারক উপাদানগুলি সরিয়ে দেয় এবং সতেজতা বজায় রাখে। আপনার শরীর লেবুতে পাওয়া ভিটামিন সি এর সুবিধাও পায়।
৭.গবেষণায় প্রকাশিত হয়েছে যে চা কফির চেয়ে বেশি উপকারী, কারণ এটি ফিল্টার করা যা এটি কম ক্ষতিকারক করে তোলে। যেখানে কফিতে থাকা ক্যাফিন সরাসরি ফিল্টারিং ছাড়াই আমাদের স্বাস্থ্যের উপর সরাসরি প্রভাব ফেলে।
৮. চায়ে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট প্রপাটিজ, যা মস্কিষ্কে রক্ত চলাচল বাড়িয়ে দিয়ে মাইগ্রেন-এর যন্ত্রণাকে কমিয়ে ফেলে।
৯. চায়ে উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট প্রপাটিজ মস্তিষ্কে রক্ত ও অক্সিজেনের সরবরাহ বৃদ্ধি করে। ফলে নার্ভ শান্ত হয়। সেই সঙ্গে শারীরিক ও মানসিক ক্লান্তিও দূর হয়।
১০.শরীরে কোথাও চোট লেগেছে? বেশ যন্ত্রণাও হচ্ছে? চিন্তা নেই এক কাপ মধু চা খেয়ে ফেলুন। দেখবেন সব কষ্ট কেমন নিমেষে কমে যাবে। আসলে মধু চা প্রদাহ হ্রাস করে। সেই সঙ্গে ক্ষতস্থানের ফোলা ভাব কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

চা খাওয়ার অপকারিতা :
১. চা খেয়ে স্বস্তি পেলেও এটি তার স্বাস্থ্যের পক্ষে খুব খারাপ। অতিরিক্ত চা পান করার অন্যতম অসুবিধা হ’ল এটি হার্টের হারও বাড়ায় এবং হার্টের অসুখ হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলে।
২.চা খেলে অনেক সমস্যা হয়। চা আমাদের অন্ত্রকে আরও খারাপ করে। যার কারণে আমাদের খাবার হজমে সমস্যায় পড়তে পারেন।
৩. অনেকে দিনে ২-৩ বারের বেশি চা খান। বেশি চা খেলে পেটে অ্যাসিডিটি বাড়ায়। একই সাথে বেশি চা খেলে করার ফলেও মুখে ফোস্কা দেখা দেয়।
৪. অনেক লোক আছেন যারা প্রতি রাতে রাতে সিদ্ধান্ত নেন যে তারা পরের দিন থেকে খালি পেটে চা খাবেন না, তবে সকালের প্রথম চুমুক তারা কেবল চা পূরণ করেন। খালি পেটে চা পান করা উচিত নয়। খালি পেটে চা খেলে শরীরের জন্য ক্ষতিকারক। এটি বিভিন্ন রোগও হতে পারে।


Tags
Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel
Close