জেলা

প্রসাদ বিতরণের মাধ্যমে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াচ্ছে গোপীবল্লভপুরের রাধাগোবিন্দ জীউ মন্দির কতৃপক্ষ

গোপীবল্লভপুর:সৃষ্টির আদিকাল থেকে শ্রীপাট গোপীবল্লভপুরের ঠাকুরবাড়ির মুল মন্ত্র হল মানব সেবা। আর মানব সেবার মন্ত্র বুকে ধারণ করে আনুমানিক ৩৫০ বছর আগে সমাজ সংস্কারক বৈষ্ণবীয় অবতার রসিকানন্দ মহাপ্রভুর হাত ধরে তিলে তিলে সুবর্ণরেখা নদীর তীরে গড়ে উঠেছে গোপীবল্লভপুর।আজ গোপীবল্লভপুর রাজ্যের রাজনৈতিক মানচিত্রে যতটা উজ্জ্বল,ঠিক ততটা উজ্জ্বল তার বৈষ্ণবীয় ভাবাদর্শের জন্য।গোপীবল্লভপুর নাম শুনলেই অজানা অচেনা মানুষেরও অন্তরে ভক্তি ভাব জেগে ওঠে।

তাই করোনা মহামারির সময় দেশের একাধিক মন্দির, মসজিদ,গির্জা তাঁর ভক্তদের জন্য দরজা বন্ধ থাকলেও মানব সেবার মন্ত্র নিয়ে করোনা মহামারির প্রথম থেকেই সাধারণ ভক্ত থেকে শুরু করে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াচ্ছে শ্রী পাট গোপীবল্লভপুরের রাধাগোবিন্দ জীউ মন্দির কতৃপক্ষ। প্রথম থেকে মন্দির কতৃপক্ষের তরফ থেকে প্রতিদিন দুপুরে অসহায় মানুষদের প্রসাদ বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু আজ, রবিবার অক্ষয় তৃতীয়া’র দিন থেকে রাধাগোবিন্দ জীউ মন্দির কতৃপক্ষ প্রতিদিন হাজারের বেশি মানুষের প্রসাদ খাওয়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। মন্দির কমিটির সদস্য কল্যান বারিক বলেন- শ্রীপাট গোপীবল্লভপুরের মহন্ত মহারাজ কৃষ্ণ কেশবানন্দ দেব গোষ্মামী প্রভুপাদ এবং গৌরকিশোরনন্দ দেব গোষ্মামীর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ঠিক হয়েছে যতদিন করোনা সংক্রমণ রুখতে লক ডাউন চলবে ততদিন সাধারণ ভক্ত থেকে শুরু করে অসহায় মানুষদের রাধাগোবিন্দ জীউ মন্দিরের প্রসাদ দান করা হবে। তিনি এও জানান- সমস্ত প্রসাদ বিতরণের প্রক্রিয়াটি প্রতিদিন সম্পন্ন হবে লক ডাউন এর সরকারি বিধি মেনে।

কোয়ারেন্টাইনে রেল রক্ষীরা, এফসিআই-এর চাল লুঠ, রেল দ্বারস্থ স্থানীয় থানার

https://youtu.be/0F_eoVLRP5E

Tags
Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Close