Corona Virusজেলা

জেলায় দুই করোনা আক্রান্ত, সিল করা হলো একটি নার্সিংহোম ও পৌরসভা

মেদিনীপুর : পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাতে এগারোটি করোনা আক্রান্ত ছিল। মঙ্গলবার সন্ধ্যার মধ্যে তাদের দশজন সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরে গিয়েছিলেন। কিন্তু রাত এগারোটার পর নতুন করে পাওয়া রিপোর্টে ধরা পড়ে জেলাতে আরো দুজন করোনা আক্রান্ত। মঙ্গলবার রাতেই নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুসারে ক্ষীরপাই এর একটি ওয়ার্ড ও পৌরসভা সিল করা হয়েছে। অন্যদিকে মেদিনীপুর শহরে একটি নার্সিংহোম ও মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগ বন্ধ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া শুরু হয়েছে।

প্রথমটি ধরা পড়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের ক্ষীরপাই এলাকার চুরাশি বছরের এক অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক, যিনি হার্টের সমস্যা নিয়ে মেদিনীপুর শহরের একটি নার্সিংহোমে ভর্তি হয়েছিলেন সম্প্রতি। ওই নার্সিংহোমে একদিন থাকার পর কলকাতায় বি এম বিড়লা তে ভর্তি হয়েছিলেন পেসমেকার বসানোর জন্য। সেখানেই ওই বৃদ্ধের নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে।

স্বাস্থ্য দপ্তর বিষয়টি জানতে পেরে দ্রুত ওই বৃদ্ধের ক্ষীরপাই এ বাসস্থান সংলগ্ন এলাকা সিল করে স্যানিটাইজেশন শুরু করে। ওই বৃদ্ধের পরিবারসহ প্রতিবেশীদের মোট ১৪ জনের সোয়াব নমুনা সংগ্রহ করে কোয়ারেন্টাইন এ পাঠানো হয়। বৃদ্ধের ছেলে ক্ষীরপাই পৌরসভাতে কর্মী ছিলেন, তাই ওই পৌরসভা অফিস বন্ধ করে দেওয়া হয়। রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়েন স্থানীয়রা।

একইসঙ্গে মঙ্গলবার রাতে হাওড়ার সালকিয়ার এক বাসিন্দা, প্রৌঢ়ও করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয় মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগে। ওই ব্যক্তির মেয়ে মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজের জুনিয়র ডাক্তার। বাবার শরীর অসুস্থ হওয়ায় রেড জোনে থাকা হাওড়ায় চিকিৎসা করা যাচ্ছিল না। তাই পরিবারের সদস্যদের সহ ৪ মে মেদিনীপুর শহরে নিয়ে এসে হাজির হয়েছিলেন তিনি। শরীরে জ্বর থাকায় মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার নমুনা পরীক্ষা করতে পজিটিভ ধরা পড়ে। বুধবার ওই প্রৌঢ়কে বড়মা হাসপাতালে পাঠিয়ে মেদিনীপুর হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগ সিল করেছে স্বাস্থ্য দপ্তর।

মেদিনীপুর হাসপাতালের ওই ওয়ার্ডকে সিল করার সঙ্গে সঙ্গে ওই ওয়ার্ডে থাকা রোগী ও চিকিৎসকদের কোয়ারেন্টাইন করছে স্বাস্থ্য দপ্তর।

Tags
Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Close