জেলা

অভিনব বিয়ে! বাড়ির সামনে ৩৬ ঘণ্টা ধর্না দিয়ে প্রেমিক কে বিয়েতে রাজি করলো প্রেমিকা!

Fancy wedding! The girlfriend agreed to marry her boyfriend with a 36-hour dharna in front of the house!

GNE NEWS DESK: আবারো দেখা গেল অভিনব কায়দায় বিয়ে। বেশ কিছুদিন আগেই বাড়ির প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধর্না দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের নাম তুলেছিলেন এক যুবক। সেই পোস্ট শেয়ার হয়ে ভাইরাল হয়ে গেছিল। প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধর্না দিয়ে প্রেমিকাকে বিয়ে করেন ওই যুবক । এবার ঘটল এরকমই ঘটনার তবে উল্টো। টানা ৩৬ ঘণ্টা প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসে থাকলেন প্রেমিকা। তারপর প্রেমিককে বিয়েতে রাজি করিয়ে বিবাহ সম্পন্ন হল। ঘটনাটি ঘটেছে ধূপগুরির মিলপারা এলাকায়।

প্রেমিকা অঞ্জনার (Anjana) দাবি করেছেন যে তার প্রেমিক অর্থাৎ সমীর (Samir) সঙ্গে তার সম্পর্ক প্রায় তিন বছরের সম্পর্ক। বেশ গভীর ছিল সম্পর্ক বলে জানান তিনি। একবার গর্ভবতী হয়ে পড়েছেন বলে অঞ্জনা দাবি করেন। সেই কারণে মার্চ মাসের দিকে তাকে একবার গর্ভপাত করানো হয়। এরপর থেকেই সমীর তার সাথে সম্পর্ক অস্বীকার করতে শুরু করে। ফোন ও ধরছিল না সে। বহু চেষ্টার পরও সমীর তাকে অস্বীকার করায় সে ধুপগুরির খুত্তীমারী এলাকা থেকে মিল পাড়া এলাকায় আসে।

কিন্তু বিষয়টি এত সহজে হাতে আসেনি অঞ্জনার। প্রথমে অঞ্জনাকে সমীরের বাড়িতে ঢুকতে দেওয়া হয়নি ।কিছুতেই তাদের সম্পর্ক স্বীকার করে নেননি সমীর । কিন্তু নিজের দাবিতে অনড় ছিলেন তিনি। রোদ-বৃষ্টি সবকিছু উপেক্ষা করে প্রেমিকের বাড়ির সামনে বসে পড়েন ধরনা দিতে। একদিন নয় টানা তিনদিন তিনি ধর্না দিয়েছেন প্রেমিকের বাড়ির সামনে। এভাবে একটি মেয়েকে কারো বাড়ির সামনে পড়ে থাকতে দেখে প্রতিবেশীদের সহানুভূতিও পেয়েছিল সে। কিন্তু সমীরের বাড়ির দরজা তার জন্য খোলা হয়নি । বহু মানুষ এই পরিস্থিতি তে অঞ্জনার পাশে দাঁড়ায়। এরপর অঞ্জনার বাড়ির লোকজন এসে বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকে।

কিন্তু প্রেমিক মহাসয় নিজের দাবিতেই টিকে ছিলেন ।কিছুতেই তিনি বিয়ে করতে রাজি হননি। অবশেষে ধৈর্যের বাঁধ ভাঙ্গে। শনিবার রাত্রে অঞ্জনাকে বিয়ে করতে রাজি হন সমীর। তারপর গভীর রাতেই তাদের শুভ বিবাহ সুসম্পন্ন হয় । এরপর অঞ্জনার বাড়ি থেকেও বিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা শুরু হয় যদিও এই বিয়েতে পুরো দায়িত্ব ছিল ছেলের বাড়ির ওপর। করোনা কে উপেক্ষা করেই কয়েকশো মানুষ এই অভিনব বিয়ে দেখার জন্য এসেছিলেন।

এখন প্রশ্ন থেকে গেল দুটো। প্রথম: সমীর প্রথমে বিয়ে করতে রাজি হচ্ছিলেন না, বাড়ির ও প্রতিবেশীদের চাপে পড়ে যে বিয়ে সম্পন্ন হলো তা ভবিষ্যতে আদৌ ভাল হবে তো?
আর দ্বিতীয়তঃ করোনা কে উপেক্ষা করে এই যে এত মানুষের বিয়ে দেখতে ভিড় করলেন এর কোনো বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা যাবে নাতো পরবর্তীকালে? প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে! কিন্তু উত্তর একমাত্র ভবিষ্যতের হাতে। তাই অপেক্ষা করা ছাড়া উপায় নেই!
[qws]Tags: আপডেট খবর,বাংলা খবর,করোনা আপডেট, আজকের রাশিফল, bengalinews, ভারতের খবর, আজকের খবর, আবহাওয়ার খবর,ঝাড়গ্রাম, উপকারিতা, দেশের খবর, আজকের নিউজ,

Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel