জেলা
Trending

সপ্তমীতে চ্যামিটাড়া সার্বজনীনে এলেন ঝাড়গ্রাম জেলার এসপি অমিতকুমার ভরত রাথোড

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালগড়: এ বছর দ্বিতীয় বর্ষে পদার্পণ করল চ্যামিটাড়া নবীন সংঘের ব্যবস্থাপনায় চ্যামিটাড়া সর্বজনীন শারদোৎসব।বয়সে নবীন হলেও কোন অনুষ্ঠান বা উৎসবকে মানুষের মন থেকে মননে পৌঁছে দেওয়ার অর্থাৎ প্রকৃত অর্থে উৎসবকে সার্বজনীন করে তোলার দক্ষতা চ্যামিটাড়া নবীন সংঘের সুনাম দীর্ঘদিনের। গতকাল চ্যামিটাড়া সার্বজনীন শারদোৎসবের সূচনা অনুষ্ঠানে এসে এই পুজো কমিটির ও এই কোভিড আবহে দুর্গাপুজোর ব্যবস্থাপনার ভুয়োশী প্রশংসা করেন লালগড় সিআরপিএফ ৫০ নং ব্যাটালিয়নের কমান্ডেট বজরঙ্গলাল মহাশয়।প্রকৃত অর্থে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে যে পুজো করা যায় তার জ্বলন্ত দৃষ্টান্ত চ্যামিটাড়া সার্বজনীন শারদোৎসব কমিটির এই পুজো।

এবার এই উৎসবে এলেন ঝাড়গ্রাম জেলার এসপি অমিতকুমার ভরত রাথোড মহাশয়। মহা সপ্তমীতে চ্যামিটাড়ার এই পুজো মন্ডপে এলেন ঝাড়গ্রাম জেলার এসপি মহাশয়‌। এদিন বেলা ১.১৫ মিনিট নাগাদ পুজো মন্ডপে এসে হাজির হন ঝাড়গ্রাম জেলার এসপি অমিত কুমার ভরত রাথোড মহাশয় , সঙ্গে ছিলেন লালগড় থানার IC অরিন্দম ভট্টাচার্য ও ঝাড়গ্রাম জেলার অ্যাডিশনাল এসপি মহাশয়, ছিলেন ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের যুব সভাপতি শ্যামল মাহাতো।

এদিন চ্যামিটাড়া সার্বজনীন পুজো কমিটির হাতে সরকারি সাহায্য ও মিষ্টি তুলে দেন মাননীয় এসপি অমিত কুমার ভরত রাথোড মহাশয়। মাননীয় এসপি মহাশয়ের গলাতেও শোনা গেল চ্যামিটাড়া সার্বজনীন শারদোৎসব কমিটির ভুয়োশী প্রশংসা।

লালগড় থানা এলাকায় প্রায় প্রতিটি গ্রামেই দুর্গাপুজো হয়ে থাকে।এর মধ্যে ৫০ বছর বা তারও বেশি সময় ধরে চলে আসা দুর্গাপুজো রয়েছে। কিন্তু এদিন মাননীয় এসপি শুধু মাত্র নির্দিষ্ট কিছু পুজো কমিটিকে নিজে উপস্থিত থেকে সরকারি সাহায্য প্রদান করে আসেন,যার মধ্যে চ্যামিটাড়া নবীন সংঘের ব্যবস্থাপনায় চ্যামিটাড়া সার্বজনীন শারদোৎসব কমিটি অন্যতম। প্রসঙ্গত চ্যামিটাড়া সার্বজনীন শারদোৎসব এ বছর দ্বিতীয় বর্ষে পদার্পণ করল।

স্বভাবতই এই দিনের মাননীয় এসপি মহাশয়ের উপস্থিতিতে খুশি পুজো উদ্যোক্তা থেকে গ্রামবাসীবৃন্দ সকলেই।

এ ব্যপারে চ্যামিটাড়া নবীন সংঘের ক্লাব সম্পাদক ও চ্যামিটাড়া সার্বজনীন শারদোৎসব কমিটির অন্যতম উদ্যোক্তা নবেন্দু বিকাশ দাস মহাশয় জানান- মাননীয় এসপি অমিত কুমার ভরত রাথোড মহাশয়ের গৌরবময় উপস্থিতিতে আমাদের সকল প্রচেষ্টা সার্থক হয়েছে। এই কোভিড পরিস্থিতিতে আমরা যেভাবে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করেছি এবং লালগড় সিআরপিএফ ৫০ নং ব্যাটালিয়নের কমান্ডেট বজরঙ্গলাল মহাশয় ও ঝাড়গ্রাম জেলার এসপি মাননীয় অমিত কুমার ভরত রাথোড মহাশয়ের কাছ থেকে যেভাবে উৎসাহ পেয়েছি তাতে আমরা গর্বিত এবং আমাদের প্রচেষ্টাকে সার্থক বলে মনে করি। তবে এর মধ্যেও যদি কিছু ভুল ত্রুটি থেকে থাকে তার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। আগামী দিনে সেই সমস্ত ভুল শুধরে আপনাদের কাছে আরও ভালো উৎসবমুখর পরিবেশ উপহার দিতে পারব বলে আশা করি।

Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel