জেলা
Trending

হাতের কাছেই মশলা থেকে ডাল,চাল থেকে আলু-শালবনী জুড়ে চালু হল হোম ডেলিভারী পরিষেবা

নিজস্ব সংবাদদাতা,শালবনী: করোনা আবহে যখন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা বাধ্যতামূলক হয়ে দাঁড়িয়েছে।বাড়ি থেকে বেরোতে ভয় করছেন আম আদমি, ঠিক সেই সময় শালবনী, চকতারিণী ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকার জন্য প্রথম অনলাইন ভুষিমাল দ্রব্য সরবরাহ শুরু করল “ঘরেরদোকান” নামের একটি সংস্থা।

এই “ঘরেরদোকান” এ নিত্যপ্রয়োজনীয় ভুষিমাল দ্রব্য অর্ডার করলে, তারা আপনার অর্ডার করা জিনিস গুলো পৌঁছে দেবে একেবারে আপনার বাড়িতে। আপনার নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের প্রায় সমস্ত কিছুই আপনি এখান থেকে পেয়ে যাবেন।

এখানে কোন কিছু অর্ডার করার পদ্ধতি একেবারে সরল ও সহজ। সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে-গ্রাহকেরা “ঘরেরদোকান” থেকে অর্ডার করতে পারবেন নিজের বাড়িতে বসেই । 9477289515 নাম্বার এ ফোন করে বা Whatsapp করে অর্ডার করতে পারেন । এছাড়াও Facebook পেজ “Ghorerdokan” থেকেও মেসেজ করে অর্ডার করা যাবে।

এই করোনা মহামারীর সময় চকতারিণী, শালবনীর এলাকাবাসীরা খুবই খুশি এইরকম একটা নতুন অনলাইন প্লাটফর্ম চালু হবার জন্য।এতে করে বাজারে ভিড় এড়ানো সম্ভব হবে ও সাধারন মানুষজন সহজে বাড়িতে বসেই এই পরিষেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

সংস্থার পক্ষ থেকে সৌরভ মন্ডল ও সুশান্ত মন্ডল আমাদের জানান-এলাকার মানুষকে শুধুমাত্র হোম ডেলিভারী সার্ভিস নয়, ঘরের দোকান মানুষেকে সঠিক গুন সম্পন্ন দ্রব্য গুলো মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে বদ্ধ পরিকর।এর জন্য আমরা সরাসরি চাষীভাইদের কাছ থেকে ও এলাকার সবথেকে ভরসা যোগ্য ও আমাদের বিশ্বস্ত কিছু হোলসেলারের কাছ থেকে পন্য গুলি নিয়ে আসছি আমাদের নিজস্ব গুদামে।পরে তা আরো ঝাড়াই বাছাই করে গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।এর ফলে গ্রাহক দোকানের থেকে অনেক কম দামে উপযুক্ত পন্য একেবারে ১০০ শতাংশ বিশুদ্ধতার সঙ্গে পাবেন।

এই পরিকল্পনার কথা বলতে গিয়ে তারা আরও জানান-“আপনারা জানেন আমাদের এখানে একটি করোনা হাসপাতাল রয়েছে।যখন থেকে এই হাসপাতাল করোনা হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা করা হয় তবে থেকেই এই এলাকার মানুষ আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে।আর এলাকাবাসীর এই আতঙ্ক কাটিয়ে তুলতেই ঘরের দোকানের পথ চলা শুরু। করোনার পরবর্তী সময়ে আমার বাবার পরিবর্তে আমিই বাড়ির বাজার করা শুরু করি। তখনই আমাদের মনে একটা প্রশ্ন আসে যে শুধু কী আমি, নাকি আমার মতো অনেক ছেলেই তার বাবা বা বয়স্কদের বাড়ি থেকে বেরোতে দিতে চাইছে না,তাই তাদের সকলের বাজার করার দায়িত্ব যদি কেউ নেই তাহলেই এই সমস্যার সমাধান সম্ভব। আর এভাবেই আমাদের পথ চলা শুরু হল।আশা করছি আগামী দিনে “ঘরেরদোকান” নিজেদের “ঘরেরদোকান” হয়ে দাঁড়াবে।

Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel