জেলা

রক্তে মিশে লড়াই, পুরুলিয়ায় প্রথম মহিলা ওসি হিসাবে দায়িত্ব সামলাচ্ছেন এই লেডি সিংঘাম

GNE NEWS DESK:পুরুলিয়া ১৯৫৬ সালে বিহার থেকে বাংলায় অন্তর্ভুক্ত হয়। এই প্রথম পুরুলিয়ার কোনও সাধারণ থানার ওসির চেয়ার সামলাচ্ছেন মহিলা তাও আবার তখন থেকে আজ পর্যন্ত প্রায় ৬৪ বছরের ইতিহাসে যা পুরুলিয়ার পুলিশ ম্যানেজমেন্টে নজির। আসলে সেনা কন্যা পারমিতা সেই ছোট থেকেই পুলিশ হওয়ার স্বপ্নে বুঁদ। বলা যায়, কিশোরী থেকেই তিনি নিজেকে একজন পুলিশ হিসাবে তৈরি করতে লড়াই শুরু করেন।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্য তাঁর বাবাকে দেখে এই পেশা বেছে নেওয়া। তাই আজ সাধারণ থানার দায়িত্ব পেয়ে যেন সামগ্রিকভাবে তাঁর স্বপ্ন সফল হয়েছে। যদিও সাব ইন্সপেক্টর এই পুলিশ অফিসার সাধারণ থানা হিসাবে পুঞ্চার ওসির আগে রঘুনাথপুর ও পুরুলিয়া মহিলা থানার ওসির চেয়ার সামলেছেন। সেই কাজ দক্ষতার সঙ্গে করাতেই তাঁকে একটি সাধারণ থানার ওসির দায়িত্ব দেয় পুরুলিয়া জেলা পুলিশ।

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরাজিতে স্নাতকোত্তর পারমিতা ঝরঝরে ইংরাজিতে কথা বলার পাশাপাশি হিন্দিতেও তুখোড়। আসলে তাঁর স্নাতক এই বিষয়েই। ফলে ঝাড়খন্ড লাগোয়া এই জেলায় তিন ভাষার দখলে থানা ‘শাসন’ করার কাজ যেন তিনি অনেকটাই সহজ করে ফেলেছেন।

বুলেটে স্টার্ট দিয়ে চষে বেড়াচ্ছেন নির্ভয়পুর, ভূতাম, আড়ালি, মুদিডির মতো প্রত্যন্ত জনপদ। অর্ধেক আকাশই যেন হাতের মুঠোয় পুড়ে নিয়েছে গোটা এলাকায়। পুরুলিয়ার পুলিশ সুপার এস. সেলভামুরুগন বলেন, “পুলিশ বিভাগে পুরুষ, মহিলা বিষয় নয়। যিনি ভাল কাজ করবেন তাঁকেই আমরা বড় কাজের দায়িত্ব দিই।”

Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel