প্রথম পাতা ভোট বাংলা আজকের রাশিফল সকালের বাংলা কর্ম সন্ধান পশ্চিম বাংলা বাংলার জেলা ভারতবর্ষ বিশ্ব বাংলা খেল বাংলা প্রযুক্তি বাংলা বিনোদন বাংলা        লাইফস্টাইল বাংলা EXCLUSIVE বাংলা GNE TV
জেলাভোটযুদ্ধ

“ম্যাডাম খাকি পড়ে দাগ নেব না”, মমতাকে পাল্টা প্রত্যুত্তর আইপিএস নগেন্দ্র ত্রিপাঠির

GNE NEWS DESK : ভোট পূর্ববর্তী ও ভোটের সময়ে পুলিশের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বারবার। তৃণমূল বা বিজেপি ও অন্যান্য রাজনৈতিক দলের তরফে অভিযোগও জমা পড়েছে একাধিক। কিন্তু দ্বিতীয় দফায় ভোট গ্রহণের দিন নন্দীগ্রামে এক অন্যরকম ঘটনার সাক্ষী থাকল বয়ালের ৭ নম্বর বুথের বারান্দা। রাজনৈতিক হেভিওয়েটের কাছে নমনীয়তা নয় বরং প্রশাসনিক দৃঢ়তার উদাহরণ হলেন নন্দীগ্রামে ভারপ্রাপ্ত সিনিয়র আইপিএস নগেন্দ্র ত্রিপাঠি

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে একাধিক ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে নন্দীগ্রাম। বয়ালের বুথে তৃণমূলের তরফে অভিযোগ ওঠে ছাপ্পা ভোটের। বুথে উপস্থিত হন নন্দীগ্রামের তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর উপস্থিতিতে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন তৃণমূল ও বিজেপি সমর্থকরা। খবর পেয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনী সহ উপস্থিত নগেন্দ্র ত্রিপাঠি। দৃঢ়তার সঙ্গে নিয়ন্ত্রণে আনেন পরিস্থিতি। সেই সময় তাঁর নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রত্যুত্তরে নগেন্দ্র বলেন, “ম্যাডাম, এই খাকি পড়ে কোন দাগ নেব না।”

বৃহস্পতিবার বয়ালে কোন তৃণমূল এজেন্টকে বসতে দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ আসে। সেই বিষয়ে নগেন্দ্র ত্রিপাঠিকে অভিযোগ করেন মমতা। নগেন্দ্র বলেন, “ম্যাডাম, আমি ওনার বাড়িতে গিয়েছিলাম ওনাকে নিয়ে আসতে।”
বুথের বাইরে রাজনৈতিক উত্তেজনা তখন চরমে। তৃণমূল ও বিজেপি সমর্থকদের মধ্যে বেঁধে যায় খণ্ডযুদ্ধ। পুলিশ ও আধাসামরিক বাহিনী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পর নিরাপত্তার কারণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নগেন্দ্র ত্রিপাঠি অনুরোধ করেন ফিরে যেতে। বুথের মধ্যে অফিসারকে মমতা বলেন, ” বুথের 200 মিটারের মধ্যে কেউ থাকতে পারেনা, তাহলে ওরা আছে কি করে?” নগেন্দ্র ত্রিপাঠি উত্তর দেন, “এখন নেই ওরা আপনি চেক করতে পারেন।” তৃণমূল নেত্রী বলেন, “সকাল বেলা থেকে সুনীলকে অনেকবার বলা হয়েছে, তোমাকেও বলা হয়েছে।” উত্তরে নগেন্দ্র বলেন, “সকালে আমি ব্যক্তিগত ভাবে দেখে গিয়েছি। এখানে তেমন কিছু ছিল না।” কিন্তু মমতা অভিযোগ করেন, “কিচ্ছু লাভ নেই। ঐসব তোমরা শিখিয়ে দাও। আমরা এখানে যাচ্ছি সরে যা, অবজারভার যাচ্ছে সরে যা। নন্দীগ্রামটা তোমরা ইন্টারন্যাশনাল ইস্যু করলে।” তখন সিনিয়র আইপিএস নিজের কলার স্পর্শ করে বলেন, “ম্যাডাম এই খাকি পরে এই দাগ নিই না, এই দাগ নেব না।” তিনি আরও বলেন, “আমি ব্যক্তিগত ভাবে ভিজিট করে গিয়েছিলাম। হতে পারে পরে এখানে লোকজন জড় হয়েছে। আপনাকে আশ্বস্ত করছি এখানে কোন অসুবিধা হবেনা। এখানে শান্তিপূর্ণ ভোট হবে।”
এই বাক্যালাপের পরে বুথ ছাড়তে সম্মত হন। ও কিছু পরে চলে যান।

প্রশাসনিক মহলে নিষ্ঠাবান ও কড়া অফিসার হিসেবে নামডাক আছে আইপিএস নগেন্দ্র ত্রিপাঠির। ২০১৬ সালে ভোটের সময় তাঁর ভূমিকা প্রশংসিত ও সমালোচিত দুই হয়েছিল। কিন্তু ভোটের পর তাঁকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছিল। পরিস্থিতির ফেরে সেই একই অফিসার এবার মমতার কেন্দ্রে ভোট পরিচালনা করলেন।

একই রকমের খবর