প্রথম পাতা ভোট বাংলা আজকের রাশিফল সকালের বাংলা কর্ম সন্ধান পশ্চিম বাংলা বাংলার জেলা ভারতবর্ষ বিশ্ব বাংলা খেল বাংলা প্রযুক্তি বাংলা বিনোদন বাংলা        লাইফস্টাইল বাংলা EXCLUSIVE বাংলা GNE TV
জেলা

হাতি তাড়াতে এসে হাতির আক্রমণে মর্মান্তিকভাবে মৃত্যু হল হুলা পার্টির সদস্যের

GNE NEWS DESK:হাতি তাড়াতে এসে মর্মান্তিকভাবে হাতির হানায় মৃত্যু হল হুলা পার্টির এক সদস্যের। ঘটনা ঝাড়গ্ৰাম জেলার গোপীবল্লভপুর ১ নম্বর ব্লকের আলমপুর গ্রামের। মৃত ব্যক্তির নাম দীপক মাহাত,বয়স ৩২ বছর, বাড়ি ঝাড়গ্ৰাম ব্লকের বাঁকশোলের সিমলি গ্রামে। জানা গেছে, এদিন বন দপ্তরের নির্দেশে হুলা পার্টির সদস্যরা গোপীবল্লভপুরের কমলাশোল বনাঞ্চল থেকে ১২ টি হাতির একটি দলকে গাইড করে সুবর্ণরেখা নদী পার করতে চাইছিলেন।

সেই সময় রাত ১২ টা নাগাদ হাতিগুলো আলমপুর গ্রামের মাঠের উপর দিয়ে যাওয়ার সময় অতর্কিতে একটি হাতি ধাওয়া করে দীপক মাহাতর দিকে। সেই সময় পালাতে গিয়ে দীপক বাবু পড়ে যান জমির আলে পা লাগার কারণ। তখন উন্মত্ত হাতির হানায় ঘটনাস্থলে মারা যান হুলা পার্টির সদস্য দীপক মাহাত।

পরে রাতের মধ্যে বন দফতর এবং পুলিশ প্রশাসনের কর্মীরা মৃত ব্যক্তির দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যান। সঙ্গে থাকা হুলা পার্টির এক সদস্য জানান,১২ টি হাতির দল তাড়িয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় রাতের অন্ধকারে কোনভাবে পেছনে একটি হাতি থেকে গিয়েছিল তা বুঝতে না পারার কারণে এই ঘটনা ঘটেছে।

উল্লেখ্য,বেশ কয়েকবছর ধরে ঝাড়গ্ৰাম জেলা তথা জঙ্গলমহলের বিভিন্ন জঙ্গলে বেড়েছে হাতির তান্ডব। খাবার এবং পানীয়ের অভাবে দলমার কয়েকটি হাতির দল একপ্রকার স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেছে নয়াগ্ৰাম,গোপীবল্লভপুর, সাঁকরাইলের জঙ্গলগুলোতে।যার ফলে পায়ই হাতির তান্ডবে এলাকার মানুষের ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়। মাঝে মধ্যে মানুষের প্রাণ হানী এবং হাতি মৃত্যুর ঘটনাও ঘটে।

এই রকম একটি পরিস্থিতিতে বন দপ্তরের উদাসিনতার অভিযোগ পায়ই উঠে।কারণ হাতি গাইড করার মতো সবসময় ব্যবস্থা হয়না।হলেও পর্যাপ্ত পরিমাণে বন কর্মী এবং হুলা পার্টির সদস্য নেই।নেই হাতি তাড়ানোর উপযুক্ত সরঞ্জাম। কোন কর্ম নিশ্চয়তা ছাড়া রাত বিরেতে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে দুর্গম এলাকা দিয়ে হাতি তাড়াতে হয় হুলা পার্টির সদস্যদের। অন্যদিকে বনাঞ্চলে থাকা মানুষজনের সচেতনতার অভাবে অনেক সময় জঙ্গলের হাতি অতিষ্ঠ হয়ে উঠে।তাই এরকম একটা পরিস্থিতিতে গোপীবল্লভপুরের আলমপুর গ্রামের মাঠে বুধবার রাতে মারা যাওয়া দীপক মাহাত এক সঙ্গী সুভাষ মাহাত বলেন, দীর্ঘদিন প্রশিক্ষণ নিয়ে হাতি তাড়ানোর কাজ প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে করলেও নেই কোন স্থায়ী কাজের বন্দোবস্ত।

তাই হুলা পার্টির পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, সকাল সদস্যদের হাতি স্থায়ী কাজের ব্যবস্থা করা হোক। সঙ্গে মৃত দীপক মাহাতর পরিবারকে ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি তার পরিবারের একজনকে চাকরি দেওয়া হোক।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.