জাতীয়Corona Virus

লকডাউনের কারণে অবাঞ্ছিত গর্ভধারণ ও গর্ভপাতের সংখ্যা বাড়বে, জানালেন বিশেষজ্ঞরা

লকডাউনের কারণে বন্ধ রয়েছে সবার কাজ। এর ফলে বাড়তে পারে অবাঞ্ছিত গর্ভধারণের সংখ্যা। আর এর প্রভাব পড়বে গর্ভপাতের উপর। এমনই জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। করোনা জনিত লকডাউনের কারণে ধাক্কা খাচ্ছে পরিবার পরিকল্পনা। ১৫ থে ২৩ শতাংশের মতো গর্ভনিরোধের পরিমাণ হ্রাস পেতে পারে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

ফাউন্ডেশন অব রিপ্রোডাক্টিভ হেলথ সার্ভিসেস ইন্ডিয়ার এক মূল্যায়নে উঠে এসেছেন ভয়ঙ্কর তথ্য। ২৩ লক্ষ ৮০ হাজার গর্ভধারণের পরিসংখ্যান উঠে এসেছে বিশেষজ্ঞদের বিশ্লেষণে। এর মধ্যে প্রায় ৬ লক্ষ ৮০ হাজার শিশু ভূমিষ্ঠ হতে পারে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। বাকী ৮ লক্ষ ৩৪ হাজার অসুরক্ষিত গর্ভপাত, সাড়ে ১৪ লক্ষ গর্ভপাত ও প্রায় ২ হাজার প্রসবকালীন শিশু মৃত্যুর আশঙ্কা করেছেন তাঁরা। এই মূল্যায়নটি আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পরিবার পরিকল্পনার হিসেবের নিরিখে করা হয়েছে। এই মূল্যায়নে জানানো হয়েছে, এই সময়কালে প্রায় সাড়ে ২৫ লক্ষ সঙ্গীকে গর্ভনিরোধকের অভাবের মধ্যে পড়তে হবে।

বর্তমান এই লকডাউনের সময়কালে গর্ভনিরোধের সঙ্গে যুক্ত ওষুধ ও কন্ডোম নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের অধীনস্থ হেলথ ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমের দেওয়া তথ্য অনুসারে, ৩৫ লক্ষ কন্ট্রাসেফটিভ বড়ি ও সাড়ে ৪০ কোটি কন্ডোম নষ্ট হতে পারে। ফাউন্ডেশন অব রিপ্রোডাক্টিভ হেলথ সার্ভিসেস ইন্ডিয়ার সিইও ভিএস চন্দ্রশেখর জানান, ‘লকডাউনের সময় গর্ভপাতের সমস্যার কারণে বাধ্য হয়ে অনিচ্ছাকৃত গর্ভধারণকে মেনে নিতে পারেন অনেক মহিলায়। সেক্ষেত্রে প্রভাবিত হতে পারে দেশের জনসংখ্যা।’

Tags
Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Close