প্রথম পাতা ভোট বাংলা আজকের রাশিফল সকালের বাংলা কর্ম সন্ধান পশ্চিম বাংলা বাংলার জেলা ভারতবর্ষ বিশ্ব বাংলা খেল বাংলা প্রযুক্তি বাংলা বিনোদন বাংলা        লাইফস্টাইল বাংলা EXCLUSIVE বাংলা GNE TV
রাজনীতিরাজ্য

পুর প্রশাসকের পদ ছাড়তেই বিধায়ক কার্যালয়ে ভাঙচুর, তৃণমূলও ছাড়লেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি

GNE NEWS DESK: শেষ পর্যন্ত জল্পনা সত্য হল। শুভেন্দু অধিকারীর ঘোষণার পরেই তাঁর পদাঙ্ক অনুসরণ করে তৃনমূল ত্যাগ করলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি (Jitendra Tiwari left the TMC)।বৃহস্পতিবার শুভেন্দুর দলত্যাগের কিছুক্ষণ পরেই আসানসোলের পুর প্রশাসকের পদ থেকে ইস্তফা দেন জিতেন্দ্র। কিন্তু পুর প্রশাসকের পদ ছাড়তেই পাণ্ডবেশ্বরে তাঁর কার্যালয়ে ভাঙচুর হয়। সেই কারণে প্রশাসকের পদ ছাড়ার ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই তৃণমূলও ছাড়ার ঘোষণা করলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি। ক্ষুব্ধ জিতেন্দ্র বলেন, “প্রশাসক পদে ইস্তফা দেওয়ার আধ ঘণ্টার মধ্যেই আমার বিধায়ক কার্যালয়ে ভাঙচুর করা হয়েছে। তাই তৃণমূল ছাড়তে বাধ্য হলাম। দলের সঙ্গে আমার আর কোনও সম্পর্ক নেই।”

অন্যদিকে গত কয়েকদিন ধরেই ‘বেসুরো’ জিতেন্দ্র দলীয় নেতৃত্বর প্রতি ক্ষোভ উগরে দিচ্ছিলেন। বুধবার রাতে বর্ধমানে শুভেন্দু অধিকারীর সাথে বৈঠকের পর সরাসরি দলনেত্রীর সাথে বৈঠকের বার্তা দেন তিনি। জানা যায়, জিতেন্দ্রর ক্ষোভ প্রশমনের জন্য উত্তরবঙ্গ থেকেই তাঁকে ফোন করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী তাঁর সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে স্থির হয়। কিন্তু তার আগের দিনই দলত্যাগ করলেন জিতেন্দ্র। ফলে বৈঠকের কোন সম্ভাবনা রইল না বলে জানিয়েছেন তিনি। বলেছেন, “এক দিকে বৈঠকের জন্য ডাকা হচ্ছে, আবার পার্টি অফিসে হামলা করা হচ্ছে।”

বৃহস্পতিবার আসানসোল পুরসভার কর্মীদের একটি সভায় প্রশাসকের পদ ছাড়ার ঘোষণা করেন জিতেন্দ্র। তিনি জানান পদত্যাগের চিঠি তিনি পাঠিয়েছেন নগরোন্নয়ন দফতরের সচিব এবং মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে। এরপরই শুভেন্দু অধিকারীর মতোই তাঁর দল ছাড়ার জল্পনা তৈরি হয়। যদিও এই বিষয়ে তিনি তখন মন্তব্য করেন, “পুরসভায় দলের বিষয়ে কোনও মন্তব্য করব না।”
তখনই কার্যত নিশ্চিত ছিল সম্ভবত তৃণমূলের সঙ্গেও সম্পর্ক ছিন্ন করতে চলেছেন পাণ্ডবেশ্বরের বিধায়ক। কিন্তু প্রশাসক পদ ছাড়ার পরেই পাণ্ডবেশ্বরে তাঁর বিধায়ক কার্যালয়ে ভাঙচুর চালায় দুষ্কৃতীরা। তারপরই তাঁর তৃনমূল ত্যাগ। জিতেন্দ্রর বক্তব্য অনুযায়ী স্পষ্ট, এই ঘটনা তাঁর দল ছাড়ার সিদ্ধান্তকে তরান্বিত করেছে। 

পুর প্রশাসক ও তৃনমূলের সাংগঠনিক এবং সদস্য পদ ত্যাগ করার সাথেই জিতেন্দ্র তিওয়ারির বিধায়ক পদ ত্যাগ নিয়ে শুরু হয়েছে গুঞ্জন। এক কথায় বৃহস্পতিবারের ঘটনাক্রমে বোঝা যাচ্ছে, শুধু মাত্র শুভেন্দু ও জিতেন্দ্রর দলত্যাগে তৃনমূলের এই ভাঙন থামছেনা। এর পরবর্তী রাজনৈতিক প্রতিক্রিয়ার জন্য অপেক্ষায় রাজ্যের রাজনৈতিক মহল।

Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel