রাজ্য

গরীবদের জন্য নয় রাষ্ট্র, বুঝেছে তালপাতার ঘরে কোয়ারান্টিনে থাকা যুবকরা

পেটের টানে ঘর সংসার ছেড়ে দূর দেশে পাড়ি দিতে হয়েছিল তাদের। সেখান থেকে টাকা পাঠালে তবেই চলছিল সংসার। এরই মাঝে দেশ জুড়ে মরণ কামড় দিল করোনা নামক এক মারণ ভাইরাস। এই ভাইরাসের সংক্রমণ আটকাতে লকডাউন জারি হল দেশে। আর আটকে পড়লো ওরা। দূর দেশে কাজ করতে যাওয়া শ্রমিকরা। এখন ওদের গালভরা নাম হয়েছে ‘পরিযায়ী শ্রমিক’। প্রায় দেড় মাস আটকে থাকার পর সহায় সম্বলহীন শ্রমিকরা কেউ হাজার হাজার মাইল হেঁটে, কেউ বা বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে লরি ভাড়া করে বাড়ি ফিরছে। সে রকমই এক ছবি দেখা গেল পুরুলিয়ার পাড়া ব্লকে।

তেলেঙ্গানায় কাজ করতে যাওয়া একদল শ্রমিক একটি লরি ভাড়া করে ফিরে এসেছে নিজের বাড়ি। ধরা দেনা করে মেটাতে হয়েছে লরির ভাড়া। এরপরও বিপদ কাটেনি তাদের। বাড়ি ফিরে সরকারি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিজেদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে গেলে হোম কোয়ারান্টিনের নির্দেশ দেন চিকিৎসকরা। এদিকে বাড়িতে কোয়ারান্টিনে থাকার মতো উপযুক্ত পরিবেশ নেই। অগত্যা গ্রামের পাশে বয়ে চলা খালের ধারে তালপাতার ঝুপড়িতে কোয়ারান্টিনে রয়েছেন রাহেরডি গ্রামের ১০ যুবক। গত ১০ মে বাড়ি ফিরে আসার পর থেকে এখানেই রয়েছেন তাঁরা। গ্রীষ্মের ঝড়-জল মাথায় নিয়েই সচেতনতার পাঠ দিচ্ছেন সমগ্র রাষ্ট্রব্যবস্থাকে।


Tags
Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Close