প্রাথমিক শিক্ষকদের চিকিৎসা ভাতা ৫০০টাকা থেকে বাড়িয়ে ন্যূনতম ১৫০০টাকা করার দাবি বিজেপি টিচার্স সেলের

The BJP Teachers Cell has demanded an increase in the medical allowance of primary teachers from Tk 500 to a minimum of Tk 1,500.

GNE NEWS DESK: করোনা ভাইরাসের মহামারীর আবহে পশ্চিমবঙ্গের প্রাথমিক শিক্ষক-শিক্ষিকাদের স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প থেকে বেরিয়ে আসার হিড়িক পড়ে গেছে। এই কয়েক মাসে হাজার হাজার শিক্ষক-শিক্ষিকা এই প্রকল্প থেকে বেরিয়ে আসার জন্য আবেদন পত্র জমা দিয়েছেন। বিজেপি টিচার্স সেলের পক্ষ থেকে বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের প্রাথমিক শিক্ষক-শিক্ষিকাদের যে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তার তীব্র বিরোধিতা করা হচ্ছে।

অথবা যে সমস্ত শিক্ষক-শিক্ষিকারা স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত হননি তাদের জন্য নতুন পে-কমিশনে মেডিক্যাল অ্যালাউন্স ৩০০টাকা থেকে বাড়িয়ে মাত্র ৫০০টাকা করা হয়েছে তারও বিরোধিতা করা হচ্ছে। বিজেপি টিচার্স সেলের রাজ্য কনভেনার দিপল বিশ্বাস জানান আমরা প্রত্যেকেই অবগত আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সমগ্র ভারতবাসীর জন্য আয়ুষ্মান ভারত নামক যে স্বাস্থ্য প্রকল্পটি চালু করেছেন তা আমাদের রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী বাস্তবায়িত না করে স্বাস্থ্য সাথী নামক একটি অতি জঘন্য স্বাস্থ্য প্রকল্প চালিয়ে যাচ্ছেন।

তাছাড়া এই প্রকল্পটির সুবিধাও সমগ্র রাজ্য বাসী পাচ্ছে না। শুধুমাত্র অসংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মচারীদের জন্য এই প্রকল্পটি চালু হয়েছে। কিন্তু আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পে সমগ্র রাজ্য বাসী বিনামূল্যে সমগ্র ভারতবর্ষের যে কোনো রাজ্যে স্বাস্থ্য পরিষেবা পাবে। করোনা আবহে আমরা দেখতে পেলাম আমাদের রাজ্যে স্বাস্থ্য পরিষেবার কী বেহাল দশা। হাসপাতালে বেড নেই, রোগীকে বাড়িতে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আবার অন্যান্য রাজ্যে যেখানে বিনামূল্যে করোনার চিকিৎসা করা হচ্ছে, সেখানে পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রান্ত রোগীকে লক্ষ লক্ষ টাকার বিল ধরানো হচ্ছে।

করোনা ভাইরাসের মহামারীর সময়েও তৃণমূলের নেতারা করোনা আক্রান্ত রোগীর কাছ থেকে ঘুরপথে কাটমানি খাচ্ছে। বিজেপি টিচার্স সেলের পক্ষ থেকে আমরা দাবি রাখছি পশ্চিমবঙ্গ বাসীর কল্যাণার্থে অতি শীঘ্রই যেন আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প চালু করা হয়। এছাড়াও দিপল বাবু জানান আশা কর্মী, অঙ্গনওয়াড়ী কর্মী, সিভিক পুলিশ এবং অন্যান্য অসংগঠিত কর্মচারীদের যেখানে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, সেখানে শিক্ষক-শিক্ষিকা যারা এই প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন তাদের মেডিক্যাল অ্যালাউন্স বেতন থেকে কেটে নেওয়া হচ্ছে।

অসংগঠিত কর্মচারীদের সাথে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের যুক্ত করে তাদের অপমান করার জন্য এবং তাদের বেতন থেকে মেডিক্যাল অ্যালাউন্স কেটে নেওয়ার জন্য আমরা তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। বিজেপি টিচার্স সেলের প্রাথমিক শাখার রাজ্য কো-ইনচার্জ সব্যসাচী ঘোষ জানান বিজেপি টিচার্স সেলের প্রাথমিক শাখার পক্ষ থেকে আমরা দাবি জানাচ্ছি নতুন পে-কমিশনে মেডিক্যাল অ্যালাউন্স ৩০০টাকা থেকে বাড়িয়ে যে ৫০০টাকা করা হয়েছে তা যেন ন্যূনতম ১৫০০টাকা করা হয়। কারণ আমরা প্রত্যেকেই জানি বছরে ৬০০০টাকা প্রিমিয়ামে বেসরকারি কোনো স্বাস্থ্য প্রকল্পে মেডিক্লেম করা যায় না। কিন্তু মাসিক মেডিক্যাল অ্যালাউন্স যদি ন্যূনতম ১৫০০টাকা করা হয় তাহলে বছরে ১৮০০০টাকায় প্রাথমিক শিক্ষক-শিক্ষিকারা নিজেদের পছন্দমতো মেডিক্লেমে যুক্ত হতে পারবেন। বিজেপি টিচার্স সেলের প্রাথমিক শাখার পক্ষ থেকে আমরা রাজ্য সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি প্রাথমিক শিক্ষকদের মেডিকেল অ্যালাউন্স অবিলম্বে ৫০০টাকা থেকে বাড়িয়ে ন্যূনতম ১৫০০টাকা করা হোক। যদি আমাদের দাবি না মানা হয় তাহলে আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে আমরা সমগ্র রাজ্য জুড়ে বৃহত্তর আন্দোলনে নামবো‌।
[qws]Tags:প্রাথমিক শিক্ষকদের চিকিৎসা ভাতা ৫০০টাকা থেকে বাড়িয়ে ন্যূনতম ১৫০০টাকা করার দাবি বিজেপি টিচার্স সেলের।

Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel