রাজ্য

রবীন্দ্র সরোবরে ছটপুজোর আরজির জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে তোপ অধীরের

The Chief Minister is eager for the cannon of Chhat Puja at Rabindra Sarobar

GNE NEWS DESK: KMDA আর্জি জানায় রবীন্দ্র সরোবরে ছটপুজো করতে দেওয়ার। যদিও পরিবেশ আদালত তা খারিজ করে দিয়েছিল। কিন্তু সেই মামলা নিয়েই বর্তমানে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। বিরোধী দলের প্রশ্ন কেন ২০১৯ এর ঘটনা সত্বেও আবার এ বছর ছটপুজো এর অনুমতি চাওয়া হচ্ছে? তবে কি আসন্ন নির্বাচনকে পাখির চোখ করে শুধুমাত্র ভোটবাক্সকে মজবুত করতেই এই পদক্ষেপ? কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরি (adhir Ranjan chowdhury) কিন্তু এমনটাই মনে করছেন। এই নিয়ে খোঁচা ও মেরেছেন তিনি।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোঁচা দিয়ে তিনি বলেন, “বিহারীরা ছাড়াও লক্ষ লক্ষ বাঙালি ছটপুজো করেন। তাঁরা কি কেউ আপনাকে বলেছেন রবীন্দ্র সরোবরে (Rabindra Sarobar) ছটপুজোর ভাসান না হলে আমরা আপনাকে ভোট দেব না? কেউ আপনাকে বলেননি। সবেতে আগ বাড়িয়ে ঝাঁপিয়ে পড়া আপনার অভ্যাস। যেমন বাংলায় কোনও মুসলমান ভাইবোন আপনাকে বলেননি দুর্গাপুজোর বিসর্জন বন্ধ করে দিয়ে মহরমের মিছিল করতে দেওয়া হোক। আপনি তা সত্ত্বেও করেছিলেন। সেটা ছিল সংখ্যালঘু ভোট হাতানোর চেষ্টা। এখন ছটপুজোর নামে বিহারীদের ভোট নিতে চাইছেন। আসলে এটা ছটপুজো নয়, ভোট পুজো।”

উল্লেখ্য, পরিবেশবিদ সুভাষ দত্ত ২০১৭ সালে রবীন্দ্র সরোবরে ছট পুজো করা নিয়ে একটি মামলা রুজু করেছিলেন। পরিবেশ আদালত সেই বিষয় বিবেচনা করে দেখার জন্য একটি বিশেষজ্ঞ কমিটিও গঠন করে। সেই কমিটির তরফ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় জীব বৈচিত্রের কথা মাথায় রেখে রবীন্দ্র সরোবরে ছট পুজো বন্ধ করা উচিত। কারণ এতে জলের প্রাণীদের অত্যন্ত ক্ষতি হচ্ছে। সেই কারণে পরিবেশ আদালত নিষেধাজ্ঞা রবীন্দ্র সরোবরে ছট পুজো করার ওপর। গেটে নিরাপত্তারক্ষী বসানো হয়। KMDA এর কর্মীরাই নিরাপত্তারক্ষী হিসেবে কাজ করেন। অথচ ২০১৮ ও ২০১৯ এ এতো কিছু সত্বেও আবার ছট পুজো করা হয়েছিল রবীন্দ্র সরোবরে। কলকাতার ফুসফুস রবীন্দ্র সরোবরে ২০১৯ পুজোর ফলে কচ্ছপ এবং মাছের মৃত্যু হয়। এই নিয়ে হুলুস্থুল পড়ে যায় চারিদিকে। কিভাবে আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্বেও ছট পুজো করা হচ্ছে রবীন্দ্র সরোবরে উঠতে থাকে নানান প্রশ্ন।

এবার কেএমডিএ’র তরফে দাবি করা হয়, যেহেতু বহু মানুষের আবেগ জড়িয়ে রয়েছে তাই রবীন্দ্র সরোবরে শর্তসাপেক্ষে ছটপুজো করতে দেওয়া হোক। কিন্তু বিচার চলাকালীন পরিবেশবিদ সুভাষ দত্ত আবার এই নিয়ে চরম আপত্তি তোলেন এবং জীব বৈচিত্রের কথা মাথায় রেখেই পরিবেশ আদালত থেকে এই আর্জি খারিজ করে দেওয়া হয়। জানানো হয় যে ছট পুজোর সঙ্গে মানুষের আবেগ জড়িয়ে আছে ঠিকই কিন্তু এর ফলে শুধুমাত্র পরিবেশের ক্ষতি হচ্ছে তাই নয়, জলের মাছ কচ্ছপসহ বিভিন্ন প্রাণী বৈচিত্র্য ক্ষতি হচ্ছে। সুতরাং রবীন্দ্র সরোবরে ছট পুজো করার অনুমতি পাওয়া যায়নি।

অন্যদিকে আবার এই নিয়ে বিরোধ বিরোধীদলের শিবিরের মধ্যে পড়ে গিয়েছে চরম হুলুস্থুলু। তারা সবাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে এই নিয়ে খোঁচা মেরেছেন। কংগ্রেসের অধীর বাবুর বক্তব্য আসন্ন নির্বাচনে বিহারীদের তরফ থেকে ভোট পাওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। পরিবেশ আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্বেও তিনি কিভাবে পরিবেশের ক্ষতি করে পুজোর অনুমতি চাইছেন তা বুঝতে পারা যাচ্ছে না। এতে পরিবেশের কতটা ক্ষতি হয় তার মুখ্যমন্ত্রী অবগত।
[qws]Tags: আপডেট খবর,বাংলা খবর,করোনা আপডেট, আজকের রাশিফল, bengalinews, ভারতের খবর, আজকের খবর, আবহাওয়ার খবর,ঝাড়গ্রাম, উপকারিতা, দেশের খবর, আজকের নিউজ,

Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel