জাতীয়

অরুণাচল প্রদেশের বিতর্কিত ২০২ একর দীর্ঘ ৩৪ বছর পর জমি চীনের থেকে পুনরুদ্ধার করলো ভারত

GNE NEWS DESK: ভারত দীর্ঘ ৩৪ বছর পর চীনের কাছ থেকে পুনরুদ্ধার করলো অরুণাচল প্রদেশের সামডোরং চু উপত্যকার বিতর্কিত ২০২ একর জমি। ভারত-চীনের বিতর্ক চলছেকৌশলগতভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই জমি নিয়ে ১৯৮৬ সাল থেকে। সামডোরং চু নদী অরুণাচলের তাওয়াং জেলা দিয়ে বয়ে চলেছে। এই নদীর তীরের ২০২ একর ঘাসজমি চীনা সেনা দখল করার চেষ্টা করে ১৯৮৬ সালে লাংরো লা পাস এলাকায়। সেই সময় দীর্ঘ ৮ মাস ভারত-চিনের সেনা পরস্পরের মুখোমুখি মোতায়েন ছিল।

১৯৮০ সালে যখন দেশের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ছিলেন, তখন থেকেই সামডোরং চু বিতর্কের শুরু, ইতিহাস থি এমনটাই বলছে। চীনের হাত থেকে কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ এই উপত্যকা বাঁচানোর চেষ্টায় ১৯৮২ সালে ইন্দিরা তৎকালীন জেনারেল কেভি কৃষ্ণ রাওয়ের পরিকল্পনায় মঞ্জুরি দেন। ভারত-চিন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় সর্বাধিক সেনা মোতায়েন করতে হবে, কৃষ্ণ রাও বলেছিলেন।

তারপর ১৯৮৪ সালের গ্রীষ্মে সামডোরং চু এলাকায় নয়া অবজার্ভেশন পোস্ট তৈরি করে ভারত। গ্রীষ্মে সেখানে সেনা মোতায়েন থাকতো। ২ বছর কাটার পর ১৯৮৬ সালের জুন মাস ভারতের টহলদারি দল দেখে যে চীনা সেনা ওই এলাকায় স্থায়ী পোস্ট এবং হেলিপ্যাড বানিয়ে ফেলেছে। তারপর ভারতও সেখানে বরাবরের জন্য ২০০ সেনা মোতায়েন করে।

সেই সময় ভারতের তরফে চীনকে প্রস্তাব দেওয়া হয়, যদি তারা শীতের মধ্যে ওই এলাকা থেকে সেনা সরিয়ে নেয়, তবে ভারত তা পুনর্দখল করবে না। কিন্তু চীন সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে। তারপর ভারতীয় এবং চীনা সেনা টানা ৮ মাস ধরে ওই এলাকায় মুখোমুখি ছিল মোতায়েন ছিল। কোনও সংঘর্ষ না হলেও ভারতীয় সেনার আয়তন দেখে চিন এলাকা ছেড়ে হঠে যায়। উল্লেখ্য, লাদাখ সংঘর্ষের আগেও চীনের বিরুদ্ধে এক জায়গায় মোতায়েন হন ২০০ ভারতীয় সেনা।

২০১৩ সালের পুনর্বাসন আইন অনুযায়ী স্থানীয় পঞ্চায়েতের অনুমতি ছাড়াই প্রতিরক্ষা, রেলওয়ে এবং যোগাযোগ সংক্রান্ত কারণে যে কোও জমি দখল করতে পারে কেন্দ্র। জানা যাচ্ছে, ওই জমি দখলের জন্য প্রতিরক্ষা মন্ত্রক গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের আওতায় থাকা ভূমি সম্পদ দফতরকে চিঠি লিখেছে।

Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel