জাতীয়

গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে ১২ বিজেপি বিধায়ক দিল্লির দ্বারস্থ

GNE NEWS DESK : ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে দিল্লি গেলেন ১২ বিজেপি বিধায়ক। তার বিরুদ্ধে দুর্বল নেতৃত্ব থেকে শুরু করে নানান রকম অভিযোগ তুলেছেন তার দলেরই বিধায়করা। দিল্লি গিয়ে তারা বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে দেখা করে তাদের দাবি জানাতে চান। তারা বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নিড্ডা ও সাধারন সম্পাদক বি এল সন্তোষের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি চেয়েছেন। এছাড়াও তারা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গেও দেখা করার প্রবল চেষ্টা করছেন।

বিজেপি বিধায়করা রয়েছেন দিল্লি ত্রিপুরা ভবনে এবং সেখানেই এক সংবাদমাধ্যমের সামনে ওই ১২ জন বিধায়কের মধ্যে উপস্থিত সুদীপ রায় বর্মন বলেন, “আমরা সকলে মিলে ঠিক করেছি ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের অত্যন্ত দুর্বল এবং খারাপ নেতৃত্তের কথা দলের শীর্ষনেতৃত্বকে জানাবো। কারণ তারা খারাপ নেতৃত্বের জন্য দলের বদনাম হচ্ছে। যদি দিনের পর দিন তিনি এইরকম খারাপ নেতৃত্ব দিতে থাকেন তাহলে বামফ্রন্ট বা কংগ্রেস‍রা পুনরায় সরকার গঠন করবে। আমরা দলকে ভালবাসি দলের সেবায় আমরা আত্মনিয়োগ করতে পারি আমরা চাই প্রত্যেক নির্বাচনে যেন ত্রিপুরায় বিজেপি থাকেন।

কিন্তু ওনার জন্য দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। বেশিদিন এইরকম চলতে দেয়া যায় না। এর আগেও নানান বেফাঁস মন্তব্যে সমালোচনার জড়িয়ে পড়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী। এতে দলের সার্বিক ক্ষতিসাধন হচ্ছে”। অভিযোগকারীদের মধ্যে আরোও এক বিধায়ক এর বক্তব্য, ” করোনা সংক্রমনের সময়ও নানা ভাবে ব্যর্থ হয়েছে ত্রিপুরা সরকার। লকডাউন এর সময় ত্রিপুরা একজন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও ঠিকভাবে ছিল না। বড় বড় আইপিএস অফিসাররাও ত্রিপুরা থেকে অবসর নিয়ে নিচ্ছে নয়তো ট্রান্সফার নিয়ে নিচ্ছে। এইরকম অবস্থায় দলের বেশির ভাগ বিধায়কই মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ চান। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রীর এক ঘনিষ্ঠ বিধায়ক এই দাবি পুরোপুরি ভাবে মানতে নারাজ। তার বক্তব্য “কেবলমাত্র কিছু লোককে মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি তুলেছেন। এবং তারা আসলে প্রাক্তন কংগ্রেসী তারা বর্তমানে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। বিজেপির পুরনো নেতাকর্মীদের ওপর আমার যথেষ্ট ভরসা আছে”।

Advertisement with GNE Bangla

একই রকমের খবর

Back to top button
Use GNE Bangla App Install Now
Subscribe YouTube Channel