প্রথম পাতা ভোট বাংলা আজকের রাশিফল সকালের বাংলা কর্ম সন্ধান পশ্চিম বাংলা বাংলার জেলা ভারতবর্ষ বিশ্ব বাংলা খেল বাংলা প্রযুক্তি বাংলা বিনোদন বাংলা        লাইফস্টাইল বাংলা EXCLUSIVE বাংলা GNE TV
রাজনীতিরাজ্য

“হোদল কুতকুত, আর একজন কিম্ভূতকিমাকার”, সাহাগঞ্জের সভা থেকে Narendra Modi ও Amit Shah তীব্র আক্রমণ Mamata Banerjee

GNE NEWS DESK: দিনকয়েক আগেই হুগলির সাহাগঞ্জের সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল সরকারকে তীব্র আক্রমণ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি(Narendra Modi)। এই দিন সেই সাহাগঞ্জ থেকে সমস্ত আক্রমণ ফিরিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)।

এই সভাতে তৃণমূলে যোগ দিলেন অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক, জুন মাল্য, মানালি দে, সায়নী ঘোষ, ভারতীয় দলের ক্রিকেটার মনোজ তিওয়ারি, পরিচালক রাজ চক্রবর্তী ও সুদেষ্ণা রায় এবং ফুটবলার সৌমিক দে।

নিজের বক্তব্যে তৃণমূল নেত্রী বিজেপির উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জের সুরে বলেন, “খেলা হবে। এবারও খেলা হবে। আমি থাকব গোলরক্ষক। একটাও গোল করতে পারবেন না।” সেই সঙ্গে তাঁর কটাক্ষ, “এখন ফিতে কাটছে। এই সব প্রকল্প আমি রেলমন্ত্রী থাকাকালীন করে দিয়ে গেছি। একাট দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়ে মিথ্যে কথা বলেন। এই দেশে এখন দু’টো নেতা। একটা নেতা হচ্ছে হোদল কুতকুত। আরেকটা নেতা হচ্ছে কিম্ভূতকিমাকার।”

বেসরকারিকরণ সম্পর্কে ও কটাক্ষ করেন মুখ্যমন্ত্রী, “নোটবন্দির টাকা কোথায় গেল, নরেন্দ্র মোদী জবাব দাও। বিএসএনএল বিক্রি হচ্ছে কেন, নরেন্দ্র মোদী জবাব দাও, কোল ইন্ডিয়া বিক্রি হচ্ছে কেন জবাব দাও।”
প্রধানমন্ত্রী সহ বিজেপি নেতারা বারবার তোলাবাজ বলে আক্রমণ করেছেন তৃণমূল নেতৃত্বকে। মমতা এইদিন পাল্টা বলেন, “কথায় কথায় বলেন, তৃণমূল তোলাবাজ? আর আপনি কি? আপনি দাঙ্গাবাজ? যাঁরা ৫টাকা, ১০ টাকা তোলে, তাঁকে বলে তোলাবাজ। আর আপনারা কোটি কোটি টাকা কাটমানি খান। কারখানা বিক্রি করে দেন। দেশটাকেই বিক্রি করে দেন।” সঙ্গে তাঁর ঘোষণা, “প্রত্যেক বিধবাকে ৬০ বছর বয়সের পরে মাসে ১০০০ টাকা করে ভাতা দেব। আগামী দিনে আমাদের ৪৫ লক্ষ শ্রমিক, যাঁরা সামাজিক সুরক্ষার আওতায় আছেন, তাঁদেরও ১০০০ টাকা করে দেব।”

বিজেপির উদ্দেশ্যে তৃণমূল নেত্রীর হুঙ্কার, “২০১৪ সালে বলেছিল ১৫ লক্ষ টাকা দেবে। ক’জন পেয়েছেন সেই টাকা। আর এখন টাকা দিয়ে এলে কী করবেন? বাংলাকে বাইরে থেকে গুন্ডা এনে ভরিয়ে দেবে। রাজ্যটাকে বিক্রি করে দেবে। আপনারা বলুন, কোনটা চাই। ভাল করে শুনে রাখ। গুজরাত বাংলা শাসন করবে না। বাংলাই বাংলা শাসন করবে। এক একটা লুটেরা। কারও কান কাটা, কারও নাক কাটা, কারও চোখ কাটা, কারও পা কাটা।”

হুগলির জনসাধারণের উদ্দেশ্যে আবেদন জানিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “মা-বোনেদের বলছি, যা হয়েছে ভুলে যান। হুগলির সব আসন আমাদের দিন।”

একই রকমের খবর