প্রথম পাতা করোনা আপডেট আজকের রাশিফল সকালের বাংলা কর্ম সন্ধান পশ্চিম বাংলা বাংলার জেলা ভারতবর্ষ বিশ্ব বাংলা খেল বাংলা প্রযুক্তি বাংলা বিনোদন বাংলা লাইফস্টাইল বাংলা EXCLUSIVE বাংলা GNE TV
রাজ্যভোটযুদ্ধরাজনীতি

ভোটে হেরে গিয়েও আবারও নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন মমতা,জেনে নিন কোথা থেকে এবার লড়াই করতে পারেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী

মুখ্যমন্ত্রী পদে আসীন থাকার সময়সীমা ৬ মাস। সেই সময়কালের মধ্যে যে কোন বিধানসভা আসনে উপনির্বাচনে জয়ী হয়ে বিধায়ক হতে হবে তৃণমূল নেত্রীকে। কিন্তু কোন আসনে উপনির্বাচনে লড়বেন তিনি সেই বিষয়ে আলোচনায় আসছে বেশ কয়েকটি আসনের নাম।

GNE NEWS DESK: সদ্যসমাপ্ত রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনে ২০০ বেশি আসনে জয় পেয়ে ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল। কিন্তু এবারের নির্বাচনে রাজনৈতিক ভাবে সবচেয়ে আকর্ষক কেন্দ্র নন্দীগ্রামে নিজের একদা সহযোগী শুভেন্দু অধিকারীর কাছে পরাজয় ঘটেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

কিন্তু দলের সম্মতিক্রমে মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন তিনিই। বিধায়ক না হয়েও তাঁর মুখ্যমন্ত্রী পদে আসীন থাকার সময়সীমা ৬ মাস। সেই সময়কালের মধ্যে যে কোন বিধানসভা আসনে উপনির্বাচনে জয়ী হয়ে বিধায়ক হতে হবে তৃণমূল নেত্রীকে। কিন্তু কোন আসনে উপনির্বাচনে লড়বেন তিনি সেই বিষয়ে আলোচনায় আসছে বেশ কয়েকটি আসনের নাম।

১. খড়দহ- ২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের খড়দহ আসনে তৃণমূলের প্রার্থী ছিলেন কাজল সিনহা। কিন্তু নির্বাচনের পরে ফল ঘোষণা হওয়ার আগেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় নেত্রী ঘনিষ্ঠ প্রার্থীর। ফল প্রকাশের পর দেখা গিয়েছে এই আসনে বিপুল ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন তিনি। ফলে এই আসনটিতে উপনির্বাচন হতে চলেছে। ফলে জয়ী আসনটিতে মমতার প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। কিন্তু জানা গিয়েছে, এই আসনে প্রার্থীর স্ত্রীকে প্রার্থী করার ব্যাপারে কথা দিয়েছেন খোদ নেত্রী। ফলে নিশ্চিত ভাবে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ততে পৌঁছনো দুষ্কর।

GNE

২. ভবানীপুর- মুখ্যমন্ত্রীর পুরাতন বিধানসভা কেন্দ্র এটি। নন্দীগ্রামে প্রার্থী হয়ে আসনটি শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়কে ছেড়ে দেন নেত্রী। এই আসনে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন শোভন। এই কেন্দ্রে প্রার্থী হওয়া তৃণমূল নেত্রীর জন্য সবচেয়ে নিরাপদ। এটি সবদিক থেকেই তাঁর পরিচিত কেন্দ্র।

সম্প্রতি দীনেশ ত্রিবেদী দল ছাড়ায় ও মানস ভুঁইয়া বিধানসভা ভোটে প্রার্থী হয়ে বিধায়ক হওয়ায় রাজ্যসভায় তৃণমূলের দুটি আসন খালি হয়েছে। রাজনৈতিক মহলের জল্পনা শোভনদেবকে রাজ্যসভায় সাংসদ হিসেবে মনোনীত করে নিজের পুরাতন কেন্দ্রেই প্রার্থী হতে পারেন তৃণমূল নেত্রী।

৩. রাসবিহারী- রাসবিহারী কেন্দ্রে কলকাতার পুর রাজনীতির পরিচিত নেতা প্রাক্তন পুর পারিষদ দেবাশীষ কুমার বিপুল ভোটে জয় পেয়েছেন। কিন্তু সামনেই পৌরসভা নির্বাচন। কলকাতা পুরসভার মেয়র পদে প্রশাসনিক কাজে অভিজ্ঞ এই নেতাকে মনোনীত করতে পারে তৃণমূল এমন সম্ভাবনা উঠে এসেছে।

অন্য এক পুর নেতা অতীন ঘোষ বিধানসভা ভোটে জয়ী হওয়ার তাঁর মন্ত্রী হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। সে ক্ষেত্রে মেয়র প্রার্থী হিসেবে দেবশীষের দিকেই পাল্লা ভারী। তিনি মেয়র হলে রাসবিহারী কেন্দ্রে উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন মমতা।

বিভিন্ন সম্ভাবনা তত্ত্ব সামনে হলেও দলীয় সূত্রে এই বিষয়ে কিছু নিশ্চিত করা হয়নি। জানা গিয়েছে, এই বিষয়ে অন্তিম সিদ্ধান্ত নেবেন তৃণমূল নেত্রী নিজেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related Articles

x